চন্দ্র অভিযানে ভারত

চন্দ্রযান-২ পুরোপুরি সফল হয়নি। ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার (ইসরো) নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গিয়েছিল ল্যান্ডার বিক্রম। ফলে পুরোপুরি ব্যর্থতায় রূপ নেয় ভারতের চন্দ্রাভিযান। হতাশায় ডুবে যায় ভারতবাসী। কিন্তু তাতেও থেমে যায়নি ইসরো। চাঁদের উদ্দেশে পাড়ি দিতে চলেছে চন্দ্রযান-৩।

নতুন বছরের প্রথম দিনেই সে সুখবর শোনাল ইসরো। বুধবার ইসরোর প্রধান কে শিভন ঘোষণা করেছেন অভিযানের জন্য তৈরি চন্দ্রযান-৩। সরকারের অনুমোদনও মিলেছে। ২০২১-এ চাঁদের পথে পাড়ি দেবে এ চন্দ্রযান। এনিয়ে তৃতীয়বার চন্দ্র অভিযানে যাবে ভারত।

ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, মহাকাশ মিশনের জন্যও চারজন মহাকাশচারীকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

বুধবার ইসরো প্রধান জানান, ২০২০ সালে প্রায় ২৫টি অভিযান হাতে নিয়েছে সংস্থাটি। তবে, চন্দ্রযান-৩ এবং গগনযানের উপর বিশেষ নজর থাকবে।
ইসরো প্রধান কে শিভন

শিভন জানিয়েছেন, চন্দ্রযান-৩ এর জন্য ৬১৫ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে সরকার। চলতি বছরের শেষের দিকে, সম্ভবত নভেম্বরে ফের চাঁদের উদ্দেশে পাড়ি দেবে ভারতের নয়া মহাকাশযান। নতুন চন্দ্রযানেও আগেরটির মতো একটি রোভার ও ল্যান্ডার থাকবে।

তিনি আরও জানান, গগনযানে চেপে মহাশূন্যে পাড়ি দেওয়ার জন্য চারজন নভোচারীকে বাছাই করা হয়েছে। ২০২২ সালের মধ্যেই ভারতীয় মহাকাশচারীদের নিয়ে অন্তত সাতদিনের জন্য মহাকাশে পাড়ি দেবে যানটি। এছাড়াও অন্যান্য উৎক্ষেপণ নিয়ে চলতি বছরে প্রায় ২৫টি অভিযানের পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটির হাতে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close