তাহিরপুরে ৪ নারী শ্রমিক মারপিটের ঘটনায় আটক ১

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তে সরকারি কাজে বাধাদান ও চার নারী শ্রমিককে মারপিটের ঘটনায় সীমান্তের সেই পেশাদার মাদক চোরাকারবারি, সন্ত্রাসী আব্দুল হান্নান ওরফে হান্নানকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে সীমান্তবর্তী বড়ছড়া শুল্ক ষ্টেশনের বড়ছড়া বাজার হতে থানার টেকেরঘাট পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আবু মুসার নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাকে আটক করেন।

আটক আব্দুল হান্নান উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের বুরুঙ্গাছড়া গ্রামের মৃত ইদ্রিস মুন্সীর ছেলে।

মঙ্গলবার রাতে তাহিরপুর উপজেলা প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) যুগান্তরকে জানায়, গত রোববার দুপুরে মাদকাসক্ত অবস্থায় চার নারী শ্রমিককে বেধরক মারপিট করে ও শ্লীলতাহানী ঘটায় অভিযুক্ত আব্দুল হান্নান ও তার সহযোগীরা। ওই সময় ভুক্তোভোগী নারী শ্রমিকরা উপজেলার সীমান্ত সড়ক বড়ছড়ার বুরুঙ্গাছড়ায় ভাঙ্গা সড়ক মেরামত কাজে নিয়োজিত ছিলেন।

মারপিটে আহত উপজেলার লাকমা গ্রামের গর্ভবর্তী নারী শ্রমিক কুলসুমা, মালতি রবি দাস, হেলেনা খাতুন,বড়ছড়ার আলেকজান বিবিসহ চার নারী শ্রমিককে ওই দিন বিকেলেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঘটনার পরদিন সোমবার তাহিরপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. সাইদুল্লাহ মিয়া সরকারি কাজে বাধাদান ও নারী শ্রমিকদের মারপিটে আহত করার ঘটনায় থানায় আব্দুল হান্নান ও তার সহযোগীদের ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করেন।

তাহিরপুর থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান তার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তাহিরপুরের টেকেরঘাট সীমান্তের বড়ছড়াসহ একাধিক গ্রামের লোকজনের অভিযোগ, হান্নান গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে সীমান্তের কিছু যুবক, কিশোর ও নারীকে ব্যবহার করে নির্বিঘ্নে ইয়াবা, বিদেশি মদ,কয়লা, চুনাপাথর ও ডিজেল চোরাচালান করে আসছে। এছাড়াও নারী নির্যাতনসহ নিরীহ লোকজনের ওপর হামলা-মামলা করিয়ে একাধিকবার দাঙ্গা সৃষ্টি করে সীমান্ত এলাকায় বেপরোয়া হয়ে উঠে হান্নান।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close