ত্রিপুরায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে বিক্ষোভ

বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি (সিএবি) নিয়ে তীব্র বিক্ষোভের জেরে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার জন্য মোবাইল ইন্টারনেট ও এসএমএম সেবা বন্ধ করেছে ত্রিপুরার রাজ্য সরকার। ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশটির প্রভাবশালী ছাত্র সংগঠন কর্তৃক ডাকা ১১ ঘণ্টার অবরোধ সহিংসতায় রূপ নিলে এ পদক্ষেপ নেয় মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব নেতৃত্বাধীন সরকার। খবর এনডিটিভি।

বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্র সরকারের উত্থাপিত বিলটি নিয়ে তাদের অভিযোগ, বিলটি এ অঞ্চলের জাতিগত পরিচয় হরণ করবে। আগরতলায় কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয় এবং রাজ্য সরকার যেন এ বিল বাস্তবায়ন না করে, এ দাবি তোলে বিক্ষোভকারীরা। তার পরই মোবাইল ইন্টারনেট ও এমএমএস সেবা বন্ধ করে দেয়া হয়। সরকারি এক কর্মকর্তার বরাতে বার্তা সংস্থা এএনআই জানায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু মহল গুজব ছড়িয়ে অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করছে, পুলিশ এ সংবাদ পাওয়ার পরই ওই পরিষেবাগুলো বন্ধ করা হয়।

এর আগে উত্তর-পূর্বের এ রাজ্যের ধালাই জেলার এক বাজারে আদিবাসী নয় এ রকম ব্যক্তিদের মালাকানাধীন দোকানে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। এছাড়া আজ আসামের গুয়াহাটিসহ উত্তর-পূর্বের বিভিন্ন জায়গার জনজীবন থমকে যায় এবং বিলের প্রতিবাদে উত্তর-পূর্বের ছাত্র সংগঠনের তরফে ধর্মঘট ডাকা হয়। মূল রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবাদে শামিল হয় বিক্ষোভকারীরা, উত্তর-পূর্ব ফ্রন্টিয়ার রেলের তরফে জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অবরোধ করার কারণে বহু ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

আসামের বিভিন্ন অংশেও ব্যাপক প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে। স্লোগানের পাশাপাশি বিধানসভা ও রাজ্যের সচিবালয়সংলগ্ন এলাকায় নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়ে বিক্ষোভকারীরা। দিব্রুগড় জেলায় সিআইএসএফ কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় বিক্ষোভকারীরা। এছাড়া দুলিয়াজানে সংঘর্ষের ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close