বিশ্বনাথে উত্তেজনায় ১৪৪ ধারা জারি

সিলেটের বিশ্বনাথে বাড়ল্লা নামক পঞ্চায়েতি বিলে মাছ ধরা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে সংঘর্ষ এড়াতে সোমবার (৯ ডিসেম্বর) দুপুরে বাড়ল্লা বিলে ১৪৪ ধারা জারি করেছে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ।

সূত্রে জানা যায়, উপজেলার করপাড়া গ্রামের তফির মিয়ার ছেলে দেলোয়ার হোসেন ও একই গ্রামের মৃত তফাজ্জুল আলীর ছেলে সোহেল মিয়ার মধ্যে সিঙ্গেরকাছ মৌজার ৫২ নং জেএলের ৪৬৫, ৪৪২,১০৮৪ নং খতিয়ানের ৯৩১৫ নং দাগের প্রায় ১০একর জায়গার ওই বিলের মালিকানা নিয়ে গত ৪/৫ দিন ধরে দু’পক্ষে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে বিশ্বনাথে।

করপাড়া গ্রামের হাজী তফির মিয়া বাড়িতে জরুরী বৈঠকে উপস্থিত থাকা ফজলুর রহমান, ফিরোজ আলী,মোশাহিদ আলী,সায়েখ আলী,আব্দুল গণি, আব্দুল ওয়াদুদ ও বাতিকুল ইসলাম জানান, ওই বাড়ল্লার বিলটি তাদের পূর্ব পুরুষদের নামে রয়েছে।ফলে সোহেল মিয়াও এর একটি অংশের মালিক রয়েছেন।আর এক অংশের মালিক থাকার সুবাদে তিনি সোহেল মিয়া) গত ৪ ডিসেম্বর বুধবার পঞ্চায়েতকে না বলে মাছ ধরতে মেশিন দ্বারা সেচ লাগান। ওইদিন পঞ্চায়েত পক্ষের লোকজন নিয়ে সেচে বাঁধা দেন গ্রামের দেলোয়ার হোসেন।

পরদিন ৫ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বিল দখল নিয়ে উত্তেজনা উল্লেখ করে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি আবেদনও করেন দেলোয়ার হোসেন। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত ওই বিলে ১৪৪ ধারা জারির আদেশ দেন। আর আদালতের ওই আদেশের প্রেক্ষিতে সোমবার বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসার নির্দেশে এসআই গোপেশ দাশ বাড়ল্লার বিলে গিয়ে ১৪৪ধারা জারির করেন।এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে থানার ওসি শামীম মুসা ও এসআই গোপেশ দাশ বলেন,পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই বিলে ১৪৪ ধারা বলবত থাকবে এবং উভয় পক্ষের কেউই বিলে মাছ ধরতে পারবেন না।

Sharing is caring!

Loading...
Open