টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ঘোষণা


সন্ধ্যা থেকেই চলছিল কনসার্ট। ব্যান্ড তারকা জেমস মঞ্চে উঠে তার পরিবেশনা শুরু করার পরই মাঠে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সন্ধ্যা ৬টা ৫৬ মিনিটে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি। এরপর মিনিট দশেক সঙ্গীতের ছন্দে চলে আতশবাজি। এতে মাঠের ক্রিকেট শুরুর তিন দিন আগে পর্দা উঠল এই আসরের।

এবার বিপিএলের সপ্তম আসরকে বিশেষ তকমা দিয়ে আলাদা আদল দিয়েছে বিসিবি। আগের সব ফ্রেঞ্চাইজি বাতিল করে নিজেদের পরিচালনায় দল স্পন্সর নিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করছে তারা। আসছে বছর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী মাথায় রেখে এবার বিপিএলের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে বঙ্গবন্ধুর নাম। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে নেওয়া নানান সরকারি আয়োজনেরও শুরু হলো এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে।

বিপিএলের উদ্বোধন উপলক্ষে বিকেল ৫টা ৪০ মিনিটে শুরু হয় অনুষ্ঠান। নির্ধারিত সময়ের আধাঘন্টা পর ৫ টা ৫৫ মিনিটে প্রথম শিল্পী হিসেবে মঞ্চে আসেন দ্য রক স্টার খ্যাত শুভ। এরপর ফোক গান পরিবেশন করেন রেশমি মির্জা ও তার ব্যান্ড মাটি।

তার পরই মঞ্চে আসেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড তারকা জেমস। তিনি ‘সুলতানা বিবিয়ানা’ গান গাইবার পরই মাঠে মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আসেন সরকারপ্রধান।

ভিআইপি গ্যালারির বারান্দায় বসানো অস্থায়ী মঞ্চ থেকেই প্রধানমন্ত্রী বিশেষ বিপিএলের উদ্বোধন ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা উপস্থিত আছেন সকলকে আমি শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।আগামী দিনে এই অনুষ্ঠান সার্থক হোক সফল হোক এবং আজকের অনুষ্ঠান আপনারা সবাই ভালোভাবে উপভোগ করুন,সেই কামনা করে আমি বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার টি-টোয়েন্টি লিগ ২০১৯ এর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করছি।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরই মঞ্চের চারপাশ আলোকিত করে আকাশের দিকে ছুটে যায় বর্ণিল আতশবাজি খেলা। সঙ্গীতের তালে মিনিট দশেক চলে এই আয়োজন। উদ্বোধন হয়ে গেলে ফের মঞ্চে ফেরেন জেমস। তিনি মা, তারায় তারায় ও চল চলে আপনে ঘর গান গেয়ে শোনান। ভিআইপি গ্যালারি থেকে প্রধানমন্ত্রী শোনেন এই পরিবেশনে।

ইতোমধ্যেই রাতে এই মঞ্চ মাতালেন ভারতীয় সঙ্গীত শিল্পী সনু নিগম কৈলাশ খের।বলিউড তারকা সালমান খান আর ক্যাটরিনা কাইফের পরিবেশনা থাকছে মূল আকর্ষণ হিসেবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close