সেই অচলায়তন ভেঙেছে দীর্ঘ ১৪ বছর পর সিলেট আওয়ামী লীগের

রাজনৈতিক দলের অন্যতম প্রাণসঞ্চারী কর্মসূচি হচ্ছে সম্মেলন। নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন কিংবা পুরনো নেতৃত্বের নবায়নের জন্য নেতাকর্মীদের কাছে সম্মেলনই সবচেয়ে আরাধ্য। কিন্তু সম্মেলন নিয়ে সিলেট আওয়ামী লীগে দেখা দিয়েছিল অচলাবস্থা। সেই অচলায়তন ভেঙেছে দীর্ঘ ১৪ বছর পর।

সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হয়েছে গেল বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর)। এ সম্মেলনের মাধ্যমে উভয় শাখায় এসেছে নতুন নেতৃত্ব। জেলা শাখায় আগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান এবার ‘ভারমুক্ত’ হয়ে পূর্ণ দায়িত্ব পেয়েছেন। আর সাধারণ সম্পাদক পদে এসেছে নতুন মুখ; আগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান পেয়েছেন এ দায়িত্ব।

অন্যদিকে, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগে শীর্ষ দুই পদেই এসেছে পরিবর্তন। জেলা শাখার সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদকে এবার মহানগরে নিয়ে এসে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আর মহানগর শাখার আগের কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেনকে এবার করা হয়েছে সাধারণ সম্পাদক।

সিলেট আওয়ামী লীগের এবারের সম্মেলনকে ঘিরে দলটির নেতাকর্মীদের উচ্ছ্বাস ছিল খানিকটা বেশি। সুদীর্ঘ ১৪ বছর পর সম্মেলনের ‘স্বাদ’ পাওয়ায় তাদের মধ্যে ছিল উৎসবের আমেজ।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল ২০০৫ সালে। সম্মেলনের মাধ্যমে তখন নতুন কমিটি এসেছিল। এরপর ২০১১ সালের নভেম্বরে জেলা ও মহানগরে নতুন কমিটি এলেও তখন সম্মেলন হয়নি; কেন্দ্র থেকে কমিটি দেওয়া হয়েছিল।

এদিকে, ২০১১ সালে যে কমিটি গঠন হয়, সে কমিটির মেয়াদ ছিল ২০১৪ সালের নভেম্বর পর্যন্ত। এরপর সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের কথা ছিল। কিন্তু তিন বছরের মেয়াদের সেই কমিটি নির্দিষ্ট সময়ে সম্মেলন কিংবা নতুন কমিটি করতে পারেনি। ফলে সিলেটে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে সম্মেলনের অপেক্ষা কেবল বাড়ছিলই।

অবশেষে তাদের অপেক্ষার অবসান হয়েছে, সম্মেলনের সাথে সাথে এসেছে নতুন কমিটিও।

নতুন কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের মুখে এখন থেকে নির্ধারিত সময়ে নিয়মিত সম্মেলন আয়োজনের প্রত্যাশার কথা শোনা গেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close