প্রধানমন্ত্রীর কাছে এমপি শিউলীর নামে নালিশ

সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য (৩১২ নম্বর আসন) উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগমের (শিউলী আজাদ) বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর কাছে নালিশ দিয়েছেন তাঁরই ননদ রুবি ইয়াছমিন। এতে পারিবারিক সম্পত্তি দখল, টাকা আত্মসাৎ, মাদক কারবার সংশ্লিষ্টতাসহ নানা অভিযোগ আনা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়াপ্রবাসী রুবি ইয়াছমিন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে এ অভিযোগপত্র পাঠিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংবাদ সম্মেলন করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাংবাদিকদের কাছে তিনি তাঁর ভাবি এমপি শিউলীর বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তুলে ধরেন।

শিউলী আজাদ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার শ্বশুর ও স্বামীকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে আমাকে মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র হিসেবেই রাজনৈতিকভাবে প্রভাবিত হয়ে এসব মিথ্যাচার করা হচ্ছে।’

দুপুর সোয়া ১টার দিকে রুবি ইয়াছমিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন। শুরুতে তিনি একটি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। পরে সাংবাদিকদের করা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর কাছে শিউলী আজাদের বিরুদ্ধে দেওয়া নালিশ ও লিখিত বক্তব্যের কপি সাংবাদিকদের মাঝে সরবরাহ করা হয়।

রুবি ইয়াছমিন সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি প্রয়াত এ কে এম ইকবাল আজাদের ছোট বোন ও এমপি শিউলী আজাদের ননদ। ২০১২ সালের ২১ অক্টোবর ইকবাল আজাদ এবং ১৯৭৪ সালের ১৬ই ডিসেম্বর তাঁর বাবা আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল খালেক রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে (৩১২ নম্বর আসন) এমপি হন শিউলী আজাদ।

সংবাদ সম্মেলনে রুবি ইয়াছমিন অভিযোগ করে বলেন, ‘সংসদ সদস্য হওয়ার পর শিউলী আজাদ আমাদের সহায়-সম্পদ গ্রাসে বেপরোয়া হয়ে ওঠেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের সন্ধানী ক্লিনিকের ২১টি শেয়ারের মধ্যে ইকবাল আজাদের প্রয়াত ভাই জাহাঙ্গীর আজাদের নামে তিনটি ও শিউলী আজাদের নামে তিনটি শেয়ার আছে। শিউলী আজাদ তাঁর নামের শেয়ারসহ জাহাঙ্গীর আজাদের তিনটি শেয়ারের টাকা জোর করে প্রতি মাসে ক্লিনিকে এসে নিয়ে যাচ্ছেন। এ ছাড়া ওই ক্লিনিক ও ক্লিনিক ভবনের দোকানের ভাড়াও প্রতিনিয়ত জোর করে নিয়ে যাচ্ছেন।’

Sharing is caring!

Loading...
Open