জামায়াত বিএনপির রাজনীতি ভোগের, আ’লীগের ত্যাগের

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতি হচ্ছে ভোগের আর আওয়ামী লীগের রাজনীতি হচ্ছে ত্যাগের। যার শতভাগ প্রমাণ রেখে গেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আর আমরা শতভাগ সৎ নেতা বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে কাজ করে যাচ্ছি, ভবিষ্যতেও যাব।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের মতো ভোগ-বিলাসের রাজনীতি করলে কেউই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বেশি দিন ঠিকতে পারবেন না। তাই আমাদের সবাইকে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দেশ ও জাতির কল্যাণে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কাজ করতে হবে।’

শনিবার (৩০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সফল করার লক্ষ্যে বিশ্বনাথে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এস এম নুনু মিয়া বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহীত সকল উন্নয়ন প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়নের জন্য আওয়ামী লীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। দলীয় শৃঙ্খলা মেনে ঐক্যবদ্ধভাবে নিজেদের এলাকার আওয়ামী লীগের অবস্থান আরও শক্তিশালী করতে হবে।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পংকি খানের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক আমির আলী চেয়ারম্যানের সঞ্চালনায় প্রস্তুতি সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শাহ আসাদুজ্জামান আসাদ, হাজী ইরন মিয়া, সমছু মিয়া, সেলিম আহমদ সেলিম, যুগ্ম সম্পাদক শাহ ফয়েজ আহমদ সেবুল, মখদ্দছ আলী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আবদুল মতিন, দপ্তর সম্পাদক সাহিদুল ইসলাম সাহিদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ফখর উদ্দিন মাস্টার, প্রচার সম্পাদক নিখিল পাল, বন ও পরিবেশ সম্পাদক রুনু কান্ত দে, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ ধর রন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সাধন চন্দ্র দাস, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শামীম আহমদ, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক জহরুল হোসেন জহির, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম জুয়েল, আবদুল আজিজ সুমন, সহ দপ্তর সম্পাদক নুরুল হক মেম্বার, কার্যনির্বাহী সদস্য তাজ উদ্দিন আহমদ, শেখ নূর মিয়া, মানিক মিয়া, এমদাদুল হক, আনোয়ার আলী, শেখ আজাদ, মিজানুর রহমান

মিজান, এডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর চেয়ারম্যান, ফজর আলী মেম্বার, রফিক হাসান মেম্বার, এনামুল হক মেম্বার, বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদকের মধ্যে আবদুন নূর মেম্বার, নজরুল ইসলাম, হাজী আরিফ উল্লাহ সিতাব, পুলক ভট্টাচার্য, তজম্মুল আলী, আবদুল হালিম শিকদার, ছালেক মিয়া, মহব্বত আলী, তফজ্জুল আলী, ইলিয়াস মিয়া,

অরবিন্দু পাল, মিজাজুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আফিয়া রশিদ, সাধারণ সম্পাদক জুলিয়া বেগম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক লাকি বেগম, প্রচার সম্পাদক দিলারা বেগম, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ছুরাব আলী, সাধারণ সম্পাদক আবদুল হান্নান বদরুল, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হাজী আমির আলী, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, সাবেক কার্যকরি সভাপতি শংকর দাশ শংকু, যুবলীগ নেতা আবদুর রউফ, কামরুজ্জামান সেবুল, জিয়াউর রহমান মিয়া, মনোহর হোসেন মুন্না, গিয়াস উদ্দিন, মুহিবুর রহমান সুইট, সুন্দর আলী রুহুল, আবুল হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বদরুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক, প্রচার সম্পাদক সিজিল মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শীতল বৈদ্য, সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমদ জয়, ছাত্রলীগ নেতা মারুফ আহমদ, মিয়াদ আহমদ প্রমুখ।বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open