সৌজন্যের আবহে শেষ হলো দুই নেত্রীর বৈঠক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির বহু প্রতিক্ষিত বৈঠকের পর দুজনই দুই দেশের সুসম্পর্কের কথা বললেন যদিও সাংবাদিকরা দুজনের কাছে জানতে চেয়েছিলেন তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তি নিয়ে কি তাদের মধ্যে কোনো আলোচনা হয়েছে? হেসে এড়িয়ে গেলেন দুজনেই।

এটা ছিল নিতান্তই এক সৌজন্যমূলক সাক্ষাৎ আমাদের দুই দেশের খুব ভালো সম্পর্ক ভারত এবং বাংলাদেশ দুটি বন্ধু দেশ আমরা চাই উনি বার বার আসুন বৈঠকের পর বললেন মমতা ব্যানার্জি।

তিস্তা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কিনা মমতাকে প্রশ্ন করা হয়? শুনতে পাননি এমন ভান করে মমতা গিয়ে বসে পড়েন তার গাড়িতে।

দুই নেত্রী বুধবার সকাল থেকে অনেক সময় একসঙ্গে কাটান। কারণ তারা ইডেন গার্ডেন্সে গোলাপি বলে ভারত-বাংলাদেশের দিন রাতের প্রথম টেস্ট একসঙ্গে দেখেন কিন্তু সবার নজর ছিল সন্ধ্যায় এর একান্ত বৈঠকের দিকে।

সূত্র জানিয়েছে দুই নেত্রী ৫৪ মিনিট একসঙ্গে কথা এবং তার মধ্যে ২০ মিনিটের বেশি সময় ছিলেন তারা শুধু দুজন।

প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক শেষে বের হওয়ার সময় কলকাতার মিডিয়া তাকে আপা আপা করে ডাকতে থাকে এবং সেই ডাকে সাড়া দিয়ে হাসিমুখে এগিয়ে যান।

সাংবাদিকদের ইশারা করে শান্ত হতে বলেন এবং তারপরে একটি সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দিয়ে উনি আবার চলে যান ইডেন গার্ডেনসে।

‘গোলাপি বলের এই টেস্ট ম্যাচ দেখতে আমি সৌরভ গাঙ্গুলীর দাওয়াতে বাংলাদেশের মানুষের শুভেচ্ছা নিয়ে এসেছি আমি। সকলকে ধন্যবাদ জানাই দুই দেশের চমৎকার সম্পর্ক’ বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিস্তা নিয়ে কোনো কথা হয়েছে? এনআরসি নিয়ে কোনো প্রশ্ন হয়েছে? এই রকম নানা প্রশ্ন উঠে আসে।

কিন্তু হাসিমুখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের গাড়িতে গিয়ে বসেন আর গাড়ির কনভোয় ছোটে ইডেনের দিকে। সেখানেই দুই নেত্রী প্রথম দিনের খেলার পর একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান একসঙ্গে উপভোগ করেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open