সিলেটবাসীর সাথে করা অঙ্গীকার রক্ষা করলেন এস পি ফরিদ উদ্দিন


বাপ্পি চৌধুরীঃ  সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার কাজলসার ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুস সালামের এক যুবকের ওপর চালানো বর্বর নির্যাতনের একটি ভিডিও সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, একই ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড সদস্য এবাদুর রহমানের বাড়িতে অনেক মানুষের উপস্থিতিতে এক যুবককে হাত-পা বেঁধে বাঁশের সঙ্গে ঝুলিয়ে বেধড়ক মারধর করছেন সালাম। নির্যাতনের শিকার যুবককে চিৎকার করে বাঁচার আকুতি করতে দেখা যায় ভিডিওতে।

এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে ইউপি সদস্য এবাদুর রহমানসহ আনোয়ার হোসেন ও শাহজাহান নামে তিনজনকে তাদের বাড়ি থেকে আটক করে পুলিশ। এরপর সন্ধ্যায় কানাইঘাটের দনা বাজার এলাকা থেকে আটক করা হয় সালাম মেম্বারকে। এ নির্যাতনের ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে থানায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) সিলেটের কানাইঘাট থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।আটকের খবর নিশ্চিত করেছেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। ইউপি সদস্য আব্দুস সালামকে আটক করে কথা রাখলেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন জানান,ভারত পালিয়ে যাবার সময় সিলেটের সীমান্ত এলাকা কাড়াবাল্লা থেকে আটক করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়, যেখানে দেখা যায় একজন ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য সামাজিক বিচারের নামে বাশেঁ ঝুলিয়ে এক ব্যক্তিকে বেধড়ক পেটাচ্ছেন। সামাজিক বিচারের নামে কাউকে অভিযুক্ত করে এ ধরনের মারধর আইন বর্হিভূত ও জঘন্য কাজ। ঘটনাটি আমাদের নজরে আসামাত্রই আমরা অনুসন্ধানে নামী।

অনুসন্ধানে জানা যায়, ঘটনাটি ৪/৫ মাস পূর্বের। ইতোপূর্বে এ ঘটনা সংক্রান্ত কোন তথ্য বা অভিযোগ থানা পুলিশকে অবহিত করা হয় নি। ভিডিওটি দেখার পর তাৎক্ষনিক ভুক্তভোগি ব্যক্তির সহিত যোগাযোগ করে মামলা করার অনুরোধ করি। অদ্য তার লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জকিগঞ্জ থানার মামলা (নং-২৪ তারিখ-২১/১০/২০১৯ইং) রুজু করা হয়। ভিডিওটি ভাইরাল হবার সাথে সাথে অভিযুক্ত সালাম মেম্বার এবং তার সহযোাগীদের গ্রেফতারের জন্য গতকাল বুধবার রাত থেকে দফায় দফায় বিভিন্ন থানা এলাকায় গ্রেফতার অভিযান পরিচালনা করে বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) বিকালে ভারতে পালিয়ে যাবার প্রাক্কালে কানাইঘাটের সীমান্তবর্তী এলাকা কারবাল্লা নামক স্থান হতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই।

এছাড়াও যার বাড়িতে ঘটনা সেই এবাদ মেম্বার এবং যে ব্যক্তিরা তার পায়ে রশি বেধেছিল সেই আনোয়ার হোসেন ও মো: শাহজাহান কে গ্রেফতার করি। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সালাম মেম্বারে এর অন্যান্য অপরাধ সংক্রান্ত তথ্য উদঘাটনের জন্য এবং ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের স্বার্থে আগামীকাল শুক্রবার আসামীদের বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ড এর আবেদন দাখিল করা হবে।

উল্লেখ্য,সিলেটের জকিগঞ্জে এক ব্যক্তিকে হাত-পা বেঁধে উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্যাতনের ভিডিও সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়। নির্যাতনের ঘটনাটি তিন মাস আগের বলে জানা যায়। তবে নির্যাতনের ভিডিও গত কয়েকদিন ধরে ঘুরছে ফেসবুকে। নির্যাতনের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ায় অভিযুক্ত নির্যাতনকারীকে গ্রেপ্তারে অভিযান নেমেছিল পুলিশ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close