রুদ্ধদ্বার বৈঠক, যে সিন্ধান্ত নিল মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ

রাত ৯টা থেকে শুরু হওয়া বৈঠক শেষ হয় বুধবার (২০ নভেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে ১টায়। এই বৈঠকে নতুন সড়ক পরিবহন আইন স্থগিতের দাবিতে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয়ার সিন্ধান্ত গ্রহন করা হয়। বৈঠকে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম ও বিআরটিএ কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন। আনুষ্ঠানিকভাবে ধর্মঘট আহ্বানকারী ট্রাক-কভার্ড ভ্যান মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের নেতাদের মধ্যে বৈঠকে ছিলেন রুস্তম আলী খান, তাজুল ইসলাম, মকবুল আহমেদসহ অন্তত ১০ জন। বাস মালিক সমিতির নেতা খন্দকার এনায়েত উল্লাহও ছিলেন বৈঠকে।

সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যে দাবিগুলো যৌক্তিক সেগুলোর জন্য আমরা সময় বেধে দিয়েছি। পাশাপাশি তাদের সঙ্গে একমত হয়েছি। ড্রাইভিং লাইসেন্স নিয়ে তাদের একটি সমস্যা ছিল। তাদের সেই দাবির প্রেক্ষিতে আমরা বলেছি, তারা এখন যেই লাইসেন্স দিয়ে গাড়ি চালাচ্ছেন, সেটি দিয়েই আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত গাড়ি চালাবেন। আগামী ৩০ জুনের মধ্যেই তাদের এ সংক্রান্ত সব কাজ শেষ করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গাড়ির ফিটনেসের বিষয় ও আইন সংশোধনীর বিষয়ে তারা আমাদের কাছে তাদের দাবি তুলে ধরেছেন। সেগুলো আমরা যোগাযোগ মন্ত্রীর কাছে পাঠাবো। তিনি সেগুলো দেখবেন।’

বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তে পরিবহন নেতারা সন্তুষ্ট উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, আমাদের বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তে তারা সন্তুষ্ট হয়েছেন এবং আমাদের সঙ্গে একমত হয়েছেন। তারা আমাদের আশ্বাসও দিয়েছেন যে আগামীকাল থেকে এই কর্মবিরতি তারা প্রত্যাহার করে নেবেন।’

বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক রুস্তম আলী খান বলেন, ‘আমরা বৈঠকে আমাদের দাবিগুলো তুলে ধরেছেন। তারা আমাদের দাবি গুনেছেন এবং তারা নীতিগতভাবে মেনে নিয়েছেন, মন্ত্রীর কথায় আমরা কর্মবিরতি প্রত্যাহার করছি।’

Sharing is caring!

Loading...
Open