চাকুরির জন্য এসে সর্বস্বান্ত হলেন তরুণী

নিউজ ডেস্ক:: পরিচিত এক লোকের কাছে চারকরি চাইতে গিয়েছিলেন ২১ বছর বয়সী এক তরুণী। চাকরি দেয়া তো দূরের কথা, ওই লোক উল্টো তার সর্বস্ব কেড়ে নিতে চান। এসময় দুই পথচারী এসে ওই ব্যক্তির হাত থেকে মেয়েটিকে রক্ষা করে। পরে নিজেরাই মেয়েটির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

বুধবার এই ভয়াবহ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের নয়দা শহরের এক পার্কে। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে চার ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, বুধবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে নয়দা শহরে রবি নামে এক পরিচিত ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করতে যান ওই নারী। রবি শহরের এক অফিসে পিয়ন হিসাবে কাজ করেন। তারই অফিসে একটি চাকরির জন্য গত কয়েকদিন ধরেই চেষ্টা করছিলেন মেয়েটি। তখন এ নিয়ে বিস্তারিত আলাপ করার কথা বলে মেয়েটিকে নয়ডার ৬৩ নং সেক্টরের একটি পার্কে নিয়ে যান রবি। কিন্তু চাকরির কথা বাদ দিয়ে তিনি মেয়েটিকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করেন। তখন মেয়েটি চিৎকার শুরু করে। তার চিৎকার শুনে দুই যুবক ছুটে আসে। তারা এসে রবিকে পেটাতে শুরু করলে এসময় সে পালিয়ে যায়।

এরপর রক্ষকরা হয়ে যান ভক্ষক। গুড্ডু ও শামু নামে দুই যুবক মিলে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। এই পৈচাশিকতার এখানেই শেষ নয়। এরপর তারা ব্রজকিশোর ও পিতাম্বর নামে আরো দুই বন্ধুকে ডেকে নেয়। এরপর পালাক্রমে তারা মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। এসময় তারা মেয়েটিকে প্রচণ্ড মরধর করে বলেও অভিযোগ রয়েছে। এরপর তারা পার্কের মধ্যে মেয়েটিকে ফেলে রেখে চলে যায়।

রাত সাড়ে ৯টার দিকে মেয়েটির জ্ঞান ফিরে আসে। এরপর তিনি ওই পার্ক থেকে সোজা থানায় যান এবং ওই পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে ১২ ঘণ্টার চেষ্টায় রবিসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। বাকি দুজন এখনও পলাতক রয়েছে। তাদের আটকের চেষ্টা করছে পুলিশ। তাদের ধরার জন্য ২৫ হাজার রুপি পুরস্কার ঘোষণা করেছে পুলিশ।

এদিকে এ ঘটনায় গুরুতর আহত নারীকে বুধবারই স্থানীয় এক হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ। বর্তমানে তার অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্র:– হিন্দুস্তান টাইমস

Sharing is caring!

Loading...
Open