প্রথম চার মাস লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৭৯ কোটি টাকা পিছিয়ে সিলেট কর অঞ্চল

চলতি অর্থবছরের (২০১৯-২০) প্রথম চার মাসে সিলেট কর অঞ্চলের আয়কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ২১৯ কোটি। তবে চার মাস শেষে (জুলাই-অক্টোবর) কর আদায় হয়েছে ১৪০ কোটি টাকা। ফলে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৭৯ কোটি টাকা কম আদায় হয়েছে। গত অর্থবছরেও লক্ষ্যমাত্রা আদায় করতে পারেনি সিলেট কর অঞ্চল। সর্বশেষ অর্থ বছরে এই অঞ্চলে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিলো ৮৬২ কোটি টাকা। তবে আদায় হয় ৬২৯.৫৬ কোটি টাকা। আর চলতি বছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৯৬২ কোটি টাকা।

এ অবস্থায় কর প্রদানে উৎসাহ বৃদ্ধি ও কর আদায় বাড়াতে সারাদেশের মতো সিলেটেও চলছে সপ্তাহব্যাপী কর মেলা। শনিবার তৃতীয় দিন শেষে মেলা থেকে আদায় হয়েছে প্রায় ১০ কোটি টাকা।

সিলেট কর অঞ্চলের উপ কর কমিশনার কাজল সিংহ বলেন, লক্ষ্যমাত্রা সবসময়ই অনেকটা বাড়িয়ে ধরা হয়। ফলে তা অনেক সময় পুরণ করা যায় না। তবে প্রতিবছরই সিলেটে কর আদায় বেড়েছে। এবছরও বাড়ছে। গত অর্থবছরের প্রথম চার মাসে কর আদায় হয়েছিলো ১২৭ টাকা। এবার ১৩ কোটি টাকা বেড়ে ১৪০ কোটি আদায় হয়েছে।

কর কমিশনার কার্যালয়, সিলেটের কর্মকর্তা বলছেন, সিলেট কর অঞ্চল স্থাপনের পর থেকে ১৮ বছরে এই অঞ্চল থেকে কর আদায়ের পরিমাণ বেড়েছে ১৩ গুণের চাইতেও বেশি।

২০০১ সালের ১ নভেম্বর সিলেট কর অঞ্চল সৃষ্টি করা হয়। প্রথম বছরে কর আদায় হয়েছিলো ৪৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা। ১৮ বছরে ৫৮২.৪২ কোটি টাকা বেড়ে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কর আদায় হয় ৬২৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। প্রতি অর্থবছরেই সিলেট অঞ্চলে আয়কর আদায়ের পরিমাণ বাড়ছে।

সংশ্লিস্টরা বলছেন, কর আদায়ের সাথেসাথে বেড়েছে করদাতার সংখ্যাও। কর প্রদান প্রক্রিয়া সহজীকরণের কারণে মানুষের মন থেকে করভীতি কাটছে। ফলে করদাতার সংখ্যা ও কর আদায়ের পরিমাণ বাড়ছে বলে দাবি কর্মকর্তাদের।

২০০১-০২ অর্থবছরে সিলেট কর অঞ্চলে আয়কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৪ কোটি টাকা। ওই অর্থবছরে আদায় হয় ৪৭ কোটি ১৪ লাখ টাকা। সর্বশেষ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৮৫২ কোটি ৯৮ লাখ টাকা কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও আদায়ের পরিমাণ ছিল ৬২৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

সিলেট কর অঞ্চলে ২০০২-০৩ অর্থবছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫৮ কোটি টাকা, আদায় হয় ৫১ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। ২০০৩-০৪ অর্থবছরে ৬৫ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা ধরা হলেও ৬১ কোটি ৪৬ লাখ টাকা আদায় হয়। ২০০৪-০৫ অর্থবছরে ৭০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে আদায় হয় ৭০ কোটি ১৮ লাখ টাকা। ২০০৫-০৬ অর্থবছরে ৯০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা ছিল, আদায় হয় ৮৩ কোটি ৩৫ লাখ টাকা।

সিলেট কর অঞ্চলে প্রথমবারের মতো ১০০ কোটি কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ২০০৬-০৭ অর্থবছরে। সে সময় ১০১ কোটি ৯০ লাখ টাকা আদায় করা হয়। ২০০৭-০৮ অর্থবছরে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৫০ কোটি টাকা। ওই সময় আদায়ের পরিমাণ ছিল ১৫৫ কোটি ৮০ লাখ টাকা। ২০০৮-০৯ অর্থবছরে ১৭৩ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা ধরে ১১৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা আদায় করা হয়। ১৮৫ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২০০৯-১০ অর্থবছরে। তবে আদায় হয় ১৩০ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। পরের অর্থবছরেও (২০১০-১১) একই পরিমাণ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। সে সময় আদায়ের পরিমাণ প্রায় কাছাকাছি (১৭৮ কোটি ৮৬ লাখ টাকা) ছিল। ২০১১-১২ অর্থবছরে সিলেট কর অঞ্চলে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা আড়াইশ’ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যায়। লক্ষ্যমাত্রা ২৮১ কোটি টাকা নির্ধারণ করে আদায় হয় ২৮৪ কোটি ৯৬ লাখ টাকা।

এদিকে, ২০১২-১৩ অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৫৫ কোটি টাকা। আদায় হয় ৩৭১ কোটি টাকা। ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ৪৫০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে ৩৯২ কোটি ৪০ লাখ টাকা আদায় হয়।

রাজনৈতিক সংঘাতময় পরিস্থিতির কারণে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সিলেট অঞ্চলে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা কমে দাঁড়ায় ৩৩২ কোটি টাকায়। তবে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে আদায় হয় ৩৫৯ কোটি ৭৮ লাখ টাকা।

২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৪৪০ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রা ধরে ৩৮১ কোটি ৮১ লাখ টাকা আদায় করা হয়। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ৫০০ কোটি টাকায় গিয়ে পৌঁছায়। আদায় হয় ৫১৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

২০১৭-১৮ অর্থবছরে আগের অর্থবছরের চেয়ে লক্ষ্যমাত্রা ২২৫ কোটি টাকা বেড়ে দাঁড়ায় ৭২৫ কোটি টাকায়। তবে আদায়ের পরিমাণ ছিল বেশ কম, ৫৩৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা।

সিলেট কর কমিশনারের কার্যালয়ের তথ্য বলছে, সিলেট কর অঞ্চলে এখনও পর্যন্ত সবমিলিয়ে ১৮টি অর্থবছরে কর আদায় করা হয়েছে। এর ।

সিলেট কর অঞ্চলের কর কমিশনার রনজীত কুমার সাহা বলেন, এ অঞ্চলে কর আদায়ের পরিমাণ বাড়াতে, কর দাতাদের উৎসাহিত করতে বিভিন্ন শ্রেণিতে করদাতাদের সম্মাননা প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়া বাসা-বাড়ি, অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে নতুন করদাতা সনাক্ত করার কাজ চলছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open