চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ, মিশন শুরু করতে যাচ্ছে

ছবি: বিসিবি

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ নিজেদের মিশন শুরু করতে যাচ্ছে বৃহস্পতিবার। প্রতিপক্ষ টেস্ট র‌্যাঙ্কিং ও টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে থাকা ভারত। ইন্দোরে দুই দলের ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায়।

নিজেদের মাটিতে ভারত বরাবরই শক্তিশালী দল। তার ওপর বিরাট কোহলিরা আছে ফর্মের তুঙ্গে। সেই দলের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে বাংলাদেশ অধিনায়ক মমিনুল হক বললেন নির্ভার থাকার কথা। যতটা সম্ভব নির্ভার থেকে ভারতের বিপক্ষে সেরা খেলাটা খেলতে চায় বাংলাদেশ দল।

টেস্ট মর্যাদা প্রাপ্তির পর ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলার জন্য বাংলাদেশকে অপেক্ষা করতে হয়েছে ১৭ বছর। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে কোহলিদের মাটিতে একমাত্র টেস্টের সিরিজ খেলে বাংলাদেশ। হায়দরাবাদে ম্যাচটিতে ২০৮ রানে হার মানে টাইগাররা।প্রায় তিন বছর পর ফের ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলতে নামছে বাংলাদেশ।

সাধারণত সব দলই কোনো সফরে মূল সিরিজ শুরুর আগে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে থাকে। বাংলাদেশ সেই সুযোগ না পেলেও আফসোস করতে চান না​ টেস্ট অধিনায়ক মমিনুল হক। তার বিশ্বাস ভালো প্রস্তুতি নিয়েই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের মিশন শুরু করতে যাচ্ছে টাইগাররা।

‘আমার কাছে মনে হয় না প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি আছে। আমরা সর্বশেষ যখন এসেছিলাম (ভারতে) তখন হায়দরাবাদে প্রস্তুতি ম্যাচ ছিল। এ বছর কোনো প্র্যাকটিস ম্যাচ নেই। খেয়াল করে দেখবেন আমরা টেস্ট টিমে ৮ খেলোয়াড় টেস্ট খেলতে আসছি (যারা টি-টোয়েন্টিতে ছিলেন না)। আটজনই কিন্তু সবাই ফোর ডে ম্যাচ খেলে আসছে। বুধবার সংবাদ সম্মেলনে এভাবেই বলে মমিনুল।

টাইগার অধিনায়ক যোগ করেন, ‘আমি পাঁচ থেকে ছয় মাসের মধ্যে আট থেকে দশটা চার দিনের ম্যাচ খেলেছি। তারপর যারা ছিল এ টিমে খেলেছে। মুশফিক ভাই, রিয়াদ ভাই সবাই ফার্স্ট-ক্লাস খেলেছে। তো আমার কাছে মনে হয় না যে কোনো প্রবলেম হবে।

ইন্দোর টেস্টে না হয় হলো। কিন্তু কলকাতা টেস্টের আগে তো অন্তত প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা দরকার।২২ নভেম্বর শুরু হতে যাওয়া ম্যাচটা যে হবে দিবারাত্রির। গোলাপি বলে কোনো ধরনের ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নেই বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের। কিন্তু সেটিও হচ্ছে না।

এ ক্ষেত্রে মমিনুল ইতিবাচক থাকতে চান সবাই খেলার মধ্যেই ছিল। ভালোভাবে অ্যাডজাস্ট করতে পারবে। জিনিসটা (প্রস্তুতি ম্যাচ) আমরাও খেলি নাই, ভারতও খেলে নাই।আমার দেশের জন্য আমার দেশের খেলোয়াড়দের জন্য এটা ভালো সুযোগ।

‘আমরা কখন আবার গোলাপি বলে খেলব কখন আবার খেলা হবে এগুলো আইডিয়া নাই। আমরা একটা সুযোগ পেয়েছি গোলাপি বলে খেলার। আমার মনে হয় এই সুযোগটা ওই ভাবে দেখে, ঘাটতি আছে এগুলো চিন্তা না করে ভালোভাবে চিন্তাভাবনা করা উচিত।

Sharing is caring!

Loading...
Open