সহযোগীকে ছিনিয়ে নিতে বিজিবির ওপর চোরাকারবারিদের হামলা ১৩ রাউণ্ড গুলি

ফাইল ছবি

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার সীমান্তবর্তী শরীফপুর ইউনিয়নে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়ে আটক চোরাকারবারিকে ছিনিয়ে নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।এসময় চোরাকারবারিদের হামলায় চার সদস্য আহত হয়েছেন। বিজিবি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী ইটারঘাট বাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

বিজিবি ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে বিজিবির চাতলাপুর ক্যাম্পের ছয় সদস্যের একটি টহল দল স্থানীয় ইটারঘাট বাজার এলাকা থেকে লোকমান মিয়া (৪২) নামে এক চোরাকারবারিকে আটক করে। সে সময় তিনি বিজিবি সদস্যদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি শুরু করেন। একপর্যায়ে লোকমানের সহযোগী ২৫-৩০ জন লোক জড়ো হয়ে তাঁকে ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালান। এসময় বিজিবির সদস্যরা বাধা দিলে লোকজন তাঁদের লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকেন। এতে বিজিবির চারজন সদস্যের মাথায় আঘাত লাগে। বিজিবি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এরপর লোকমান ও তাঁর সহযোগীরা পালিয়ে যান। পরে শ্রীমঙ্গলের ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তর থেকে বিজিবির দুটি দল ঘটনাস্থলে যায়। তাঁরা আহত সদস্যদের উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত বিজিবির ৪৬ ব্যাটালিয়নের সদর দপ্তরে নিয়ে যায় এবং সেখানে আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ দিকে ঘটনার সময় ইটারঘাট বাজারের লোকজন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে ৮জনের নামোল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছেন বিজিবি চাতলাপুর ক্যাম্পের নায়েক।

বিজিবির ৪৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল হক বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে মোবাইলে বলেন, লোকমান এলাকার চিহ্নিত চোরাকারবারি। হামলায় জড়িত অন্যান্যরাও চোরাকারবারের সাথে যুক্ত বলে জানা গেছে। আমাদের বিজিবির ৬ সদস্য টহলররত অবস্থায় লোকমানকে আটক করে। তাৎক্ষণিক সেখানে থাকা তাঁর সহযোগীরা বিজিবির ওপর হামলা চালিয়ে লোকমানকে নিয়ে পালিয়ে যায়। ওই সময় কোন অপ্রীতিকর ঘটনায় যাতে প্রাণহানি না ঘটে এজন্য তাঁদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এ ব্যাপারে কুলাউড়া থানায় মামলা করা হয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open