ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবিতে মাশরাফীর সমর্থন

বাংলাদেশের ক্রিকেট ঠিক পথে নেই- এমন অভিযোগ করে দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নে ১১ দফা দাবি জানিয়ে ধর্মঘটে গেছেন দেশের ক্রিকেটাররা। সোমবার মিরপুরে শেরে-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম সংলগ্ন একাডেমি মাঠে এক সংবাদ সম্মেলন করে তারা এই দাবি তুলে ধরেন।

ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হিসেবে সাকিব জানিয়েছেন, দাবিদাওয়া পূরণ না হওয়া পর্যন্ত কোন ধরণের ক্রিকেট কার্যক্রমে অংশ নেবেন না ক্রিকেটাররা। যেহেতু অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সামনে বিশ্বকাপ আছে, তাই তাদেরকে এই ধর্মঘটের আওতায় রাখা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন সাকিব।

এদিকে, দেশের সকল ক্রিকেটাররা যখন দেশের ক্রিকেটের স্বার্থের কথা বলে এমন দাবি জানাচ্ছেন তখন দৃশ্যপটে ছিলেন না বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। সোমবার রাত ১১টা ৩৭ মিনিটে নিজের ভেরিফায়েড পেজে তার অবস্থান ব্যাখ্যা করেন।

মাশরাফী জানান, তাকে এই কর্মসূচি সম্পর্কে আগে থেকে জানানো হয়নি। মিডিয়া থেকেই এই কর্মসূচি জেনেছেন তিনি।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, মিডিয়ায় ওদের খবর দেখার পর থেকে হাজারবার আমার মাথায় এই প্রশ্ন এসেছে, যে কেন আমাকে জানানো হলো না। অনেকে আমার কাছে জানতেও চেয়েছেন। কিন্তু আমি নিজেও জানি না, কেন জানানো হয়নি।

ফেসবুকে মাশরাফী লিখেন- 

অনেকেই প্রশ্ন করছেন যে, দেশের ক্রিকেটের এমন একটি দিনে আমি কেন উপস্থিত ছিলাম না। আমার মনে হয়, প্রশ্নটি আমাকে না করে, ওদেরকে করাই শ্রেয়। এই উদ্যোগ সম্পর্কে আমি একদমই অবগত ছিলাম না। নিশ্চয়ই বেশ কিছু দিন ধরেই এটি নিয়ে ওদের আলোচনা ছিল, প্রক্রিয়া চলছিল। কিন্তু এ সম্পর্কে আমার কোনো ধারণাই ছিল না। সংবাদ সম্মেলন দেখে আমি ওদের পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে পেরেছি।

ক্রিকেটারদের নানা দাবির সঙ্গে আমি আগেও একাত্ম ছিলাম, এখনও আছি। আজকের পদক্ষেপ সম্পর্কে আগে থেকে জানতে পারলে অবশ্যই আমি থাকতাম।

মিডিয়ায় ওদের খবর দেখার পর থেকে হাজারবার আমার মাথায় এই প্রশ্ন এসেছে, যে কেন আমাকে জানানো হলো না। অনেকে আমার কাছে জানতেও চেয়েছেন। কিন্তু আমি নিজেও জানি না, কেন জানানো হয়নি।

তবে আমার উপস্থিত থাকা কিংবা না থাকার চেয়ে, ১১ দফা দাবি বাস্তবায়িত হওয়াই বড় কথা। সবকটি দাবিই ন্যায্য, ক্রিকেট ও ক্রিকেটারদের মঙ্গলের জন্য জরুরী। আমি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা, ১১ দফা দাবি শান্তিপূর্ণ ভাবে বাস্তবায়িত হওয়ার পক্ষে আছি, থাকব।

 

Sharing is caring!

Loading...
Open