পদত্যাগ করছেন কোয়াব সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল !

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বিভিন্ন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অসন্তোষ জানিয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে পারিশ্রমিক বাড়ানো, ক্রিকেটারদের প্রতি বোর্ডের দৃষ্টিভঙ্গি বদলানোসহ মোট ১১ দফা দাবিতে ধর্মঘট ডেকেছেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবির প্রথম দাবি কোয়াব (ক্রিকেটার ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ) নেতৃবৃন্দের পদত্যাগ, সেই দাবিতে সাড়া দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক।

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল সোমবার রাতে বেসরকারি টেলিভিশন একাত্তর টেলিভিশনের ‘একাত্তর জার্নাল’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যে পদত্যাগের ইঙ্গিত দিয়েছেন।

ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে কোয়াব নেতাদের পদত্যাগের দাবি ওঠার বিষয়ে অনুষ্ঠানের উপস্থাপক মিথিলা ফারজানা ও আলোচক উদিসা ইসলাম জানতে চাইলে দেবব্রত পাল বলেন, ‘আগামীকালকেই (মঙ্গলবার) আমরা কথা বলবো। অলরেডি আমরা মিটিং করেছি। আগামীকালকেই (মঙ্গলবার) বিস্তারিত সব কিছু জানতে পারবেন। আপনারা জানেন, আমাদের দেশে অনেকেই পদ ছাড়তে চান না। আমরা সেরকম ব্যাকগ্রাউন্ডের সংগঠন না।’

এরআগে সোমবার দুপুরে ১১ দফা দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট কর্মকাণ্ড থেকে সরে থাকার ঘোষণা দেন সাকিব-তামিমরা। মিরপুর ক্রিকেট একাডেমিতে ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হিসেবে ধর্মঘটের ঘোষণা দেন সাকিব আল হাসান।

এরপর নিজেদের দাবিগুলো তুলে ধরেছেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নাঈম ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র, এনামুল হক বিজয়, তাসকিন আহমেদ ও জুনায়েদ সিদ্দিকরা।

এরমধ্যে কোয়াব বিলুপ্তির ব্যাপারে প্রথম দাবি পেশ করেছেন নাঈম ইসলাম। তিনি বলেছেন, আমাদের যে প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন আছে, কোয়াব, তারা ক্রিকেটারদের পক্ষে কথা বলবে, সেটির কোনো কিছু আমরা তাদের কার্যক্রমে পাইনি। আমাদের প্রথম দাবি হচ্ছে, কোয়াবের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক, যারাই আছেন, তাদের অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে। যেহেতু এটা প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন, আমরা ক্রিকেটাররাই নির্বাচনের মাধ্যমে পছন্দ করব, কারা এখানে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হবেন।

উল্লেখ্য, কোয়াব-এর সভাপতি সাবেক অধিনায়ক নাঈমুর রহমান একই সঙ্গে বিসিবি পরিচালক, ও সহ-সভাপতি খালেদ মাহমুদও বিসিবি পরিচালক।

Sharing is caring!

Loading...
Open