জকিগঞ্জে চলন্ত গাড়িতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ চালক-সহকারীর

সিলেটের জকিগঞ্জে  চলন্ত গাড়িতে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে গাড়ির চালক ও তার সহকারী। মঙ্গলবার ভোরে টমটম চালক কাওসার আহমদকে (২০) আটক করেছে পুলিশ। তবে চালকের সহকারী নাজিম আহমদ (২১) পলাতক রয়েছে।

আটক কাওসার জকিগঞ্জ উপজেলার নালচুক গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে। আর পলাতক নাজিম আহমদ একই উপজেলার সোনারগ্রামের মৃত কালা মিয়ার ছেলে।

ওই ছাত্রীকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

জকিগঞ্জ থানার ওসি মীর মোহাম্মদ আব্দুন নাসের জানান, সোমবার ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

তিনি বলেন, কয়েকজন সহপাঠীর সঙ্গে ছাত্রীটি স্কুল ছুটির পর একটি টমটম গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিল। পথে অন্য সহপাঠীরা যার যার বাড়ির সামনে নেমে পড়লে একপর্যায়ে ওই ছাত্রী একা হয়ে পড়ে। তখন গাড়ির পর্দা টানিয়ে চালক কাওসার আহমদ ও তার সহকারী নাজিম আহমদ চলন্ত গাড়িতে ছাত্রীকে ধর্ষণ করে।

এসময় ছাত্রীর চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে দুই ধর্ষক পালিয়ে যায়। পরে ওই ছাত্রীকে প্রথমে জকিগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাতেই তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ওসি আরও জানান, অভিযুক্তদের আটক করতে রাতেই অভিযানে নামে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার বড়পাথর এলাকায় অভিযান চালিয়ে টমটম গাড়িসহ চালক কাওসারকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে কাওসার ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। চালকের সহকারী নাজিমকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open