লাখাইয়ে শিশু হত্যা মামলায় ১ জনের যাবজ্জীবন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি:: হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলায় ৯ বছর বয়সী শিশু রুবেল মিয়াকে হাত-পা বেঁধে পানিতে ফেলে হত্যাকারী রায়হান মিয়া ওরফে জাবেদ রায়হান (৩১)কে যাবজ্জীবন কারদন্ড দিয়েছেন আদালত।
বুধবার বেলা ১২টায় হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এসএম নাসিম রেজা এই রায় প্রদান করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালত পরিদর্শক মোঃ আল-আমিন। দন্ডপ্রাপ্তকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৫ বছর কারাদন্ডের আদেশ দেন আদালত। রমনা থানার শিকদার বাড়ি এলাকার শাহজাহান মোল্লার ছেলে সে। রায় ঘোষনার সময় রায়হান আদালতে উপস্থিত ছিল।

আদালত সূত্রে জানা যায়, হত্যাকারী রায়হান লাখাই উপজেলার ধর্মপুর গ্রামের আব্দুল হাইকে পিতা ডেকে সেখানেই বসবাস করে আসছিল। ২০০৩ সালের ৮ই আগস্ট একই গ্রামের শরীফ মিয়ার ৯ বছর বয়সী সন্তান রুবেলকে মাছ ধরার কথা বলে নৌকাতে করে পার্শ্ববর্তী হাওরে নিয়ে বলৎকারের চেষ্টা চালায় সে। শিশু রুবেল এ সময় চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করলে ক্ষিপ্ত হয়ে তার হাত-পা বেঁধে পানিতে ফেলে দেয় রায়হান।
ঘটনার ৩ দিন পর হাওরে ভাসমান অবস্থায় মরদেহটি দেখতে পান স্থানীয়রা। ১১ই আগস্ট মরদেহ উদ্ধারের দিনই রুবেলের পিতা বাদী হয়ে রায়হানকে একমাত্র অসামী করে লাখাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
পরবর্তীতে ২০০৫ সালের ৫ই অক্টোবর লাখাই থানার তৎকালীন উপ পরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান মিয়া আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। হত্যাকান্ডের দীর্ঘ ১৬ বছর পর ১১ জনের স্বাক্ষী গ্রহণ শেষে আদালত রায় ঘোষণা করেছেন।

হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ ফারুক জানান, রায় ঘোষণার পর রুবেলের পরিবার সন্তোষ প্রকাশ করেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open