গোয়াইনঘাট উপজেলায় যত্রতত্র গড়ে উঠেছে ফার্মেসী প্রতারিত জনসাধারণ

গোয়াইনঘাট উপজেলায় যত্রতত্র গড়ে উঠেছে ওষুধের দোকান (ফার্মেসী)। কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে গড়ে উঠা এইসব ফার্মেসীতে প্রতারিত হচ্ছেন জনসাধারণ। গোয়াইনঘাট উপজেলা সদরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনেই ১২টিসহ আধা কিলোমিটারের মধ্যে রয়েছে ২২টি ফার্মেসী।

সারা উপজেলার ৩৫ টি গ্রামীণ হাটবাজারের প্রায় আড়াইশ’র মত ফার্মেসী থাকলেও বেশীরভাগেরই নেই বৈধতা। ড্রাগ লাইসেন্স ও ফার্মাসিস্টবিহীন চলেছে ওষুধের ব্যবসা। ফার্মাসিস্ট, ড্রাগ লাইসেন্স না থাকলেও দেদারসে চলছে ব্যবসা। অনেক ফার্মেসীতে রোগীরা রীতিমত প্রতারিত হচ্ছেন। আবার কোন কোন ফার্মেসীতে অবৈধভাবে প্রেসক্রাইব করে ওষুধ বিক্রি করা হয়। বেশ কিছু ফার্মেসিতে চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র পড়ার মত লোক নেই। সাধারণ লোকেরা ফার্মেসীর পরিচালক, ওষুধ বিক্রেতাদের ডাক্তার মনে করেন। গ্রামের লোকেরা রোগী নিয়ে প্রথমেই শরনাপন্ন হন ফার্মেসীতে। আর এখানে এসে প্রতারিত হন নানাভাবে।

উপজেলা সদরেও প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধ ফার্মেসী ব্যবসা চলছে। সাধারণ মানুষ প্রতারিত হলেও সংশ্লিষ্ট ড্রাগ পরিদর্শক রয়েছেন নির্বিকার। জনস্বার্থে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ খতিয়ে দেখবেন প্রত্যাশা সচেতন মহলের।

Sharing is caring!

Loading...
Open