সিলেট নগরীর সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনতে ফের সিসিকের অভিযান

সিলেট নগরীর সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনতে ও নগরবাসীকে স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচলের সুযোগ করে দিতে ফুটপাত দখল মুক্ত করতে ফের অভিযানে নেমেছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। একইসাথে রাস্তার দু’পাশ অবৈধভাবে দখল করে যানবাহন রেখে চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় ১৫টি ট্রাক জব্দ করা হয়।

বার বার আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে নগরীর ফুটপাত দখল করায় রোববার (৬ অক্টোবর) দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত সিসিকের কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিয়ে এ অভিযান চালান সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এছাড়াও সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সদস্যারাও এসময় সিসিকের অভিযানে সহযোগিতা করেন।

নগরীর ক্বিন ব্রিজের নিচ থেকে শুরু হওয়া অভিযানে বেশ কয়েকটি চটপটির ভ্যান ও ভাসমান ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল জব্দ করা হয়।
সিসিক সূত্রে জানা যায় তোপখানা রাস্তার উপর অবৈধ পার্কিং করে রাখায় অন্ত:ত ১৫টি ট্রাকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও ট্রাকগুলো জব্দ করে পুলিশ লাইনে নিয়ে যাওয়া হয়।পরে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নগরীর কোর্ট পয়েন্ট জিন্দাবাজার এলাকায় অভিযান চালান।এ সময় সড়কের দুই পাশের ফুটপাত দখল করে রাখা বেশ কয়েকটি ভ্যানগাড়ি ও বিপুল পরিমাণ আসবাবপত্র জব্দ করা হয়।

অভিযান শেষে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী গনমাধ্যমকর্মীদের জানান, “ফুটপাতে জনসাধারণের চলাচলে হকারদের জন্য বিরাট বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।আদালত ও সিটি করপোরেশন থেকে হকারদের উচ্ছেদে বারবার নির্দেশনা দেওয়ার পরও তারা আইন মানছেন না। যার কারণে ফুটপাত দিয়ে পথচারীদের চলাচল অনেকটা কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে।”

সিসিক মেয়র আরো বলেন, “ফুটপাত দখল করে ব্যবসা করায় পথচারীদের হাঁটতে হচ্ছে মূল সড়ক দিয়ে। এতে অনেক সময় দুর্ঘটনায় পড়ছেন নগরবাসী। একারণেই নগরবাসীকে স্বাচ্ছন্দ্যে চলাচলের সুযোগ করে দিতে কঠোর অবস্থান নিতে হয়েছে আমায়।”

অভিযানে সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবরসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open