বিছনাকান্দি থেকে ২টি রিভলবারসহ অস্ত্রসহ ব্যবসায়ী আটক

চলতি মাসের ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকার যাত্রাবাড়ি এলাকায় ৩টি অস্ত্রসহ সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা যুবদল নেতা রানীগঞ্জ ইউনিয়নের ঘোষগাঁও গ্রামের মৃত মন্তাজ উল্লার ছেলে আনসার মিয়া ও একই ইউনিয়নের টিয়াগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের

ছেলে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শহিদসহ ৩ অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার হন।তাদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় এই অস্ত্রগুলো গোয়াইনঘাটের সোনাহাটা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।এমন সংবাদ পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ হলে সিলেট

জেলার গোয়াইনঘাটে গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে সিলেট জেলা পুলিশ।এমন তৎপরতায় হাতেনাতে ফলাফলও পেয়েছে সিলেট জেলা পুলিশ।তারা মঙ্গলবার দুপুরে আরব আলী (৩৬) নামের এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে আটক করে।এমন তথ্য বুধবার সকাল

সাড়ে১০ টায় সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন।তিনি জানান ঢাকায় গ্রেফতার সুনামগঞ্জের দুই অস্ত্র ব্যবসায়ী গোয়াইনঘাট সোনাহাটা সীমান্ত দিয়ে অস্ত্র বাংলাদেশে প্রবেশ করছে বলে জানায়।এমন সংবাদ পত্র-

পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর আমরা গোয়েন্দা তৎপরতা জোরদার করি এবং আরব আলীকে ২টি অস্ত্রসহ আটক করতে সক্ষম হই।এসপি আরও বলেন আটক আরব আলীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সে গত ২ বছর থেকে এই অস্ত্র ব্যবসা চালিয়ে আসছে।

সে ভারতের খাসিয়ার কাছ থেকে অস্ত্র সংগ্রহ করে আব্দুস সহিদ এবং আনছার মিয়ার কাছে সরবরাহ করতো।এ পর্যন্ত সে ১২টি অস্ত্র ভারত থেকে নিয়ে এসেছে বলে জানিয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open