২৪ বছর ধরে পলাতক কটাই মিয়া , বোরকা পরে গ্রেপ্তার

পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ২৪ বছর ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আবদুস সাত্তার ওরফে কটাই মিয়া (৪৫)। অবশেষে মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে বিয়ানীবাজার পুলিশ কৌশলে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। বোরকা পরে নারী সেজে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) সিলেটে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (জেলা বিশেষ শাখা ও মিডিয়া অফিসার) মো. আমিনুল ইসলাম সাক্ষরিত ও গণমাধ্যমে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই জানায় জেলা পুলিশ।

এতে বলে হয় পলাতক থেকেই সে মাদক ব্যবসা চালাচ্ছিলেন। বারবার চেষ্টা করেও তাকে গ্রেপ্তার করা যাচ্ছিল না। তবে সে জন্য অবলম্বন করতে হয়েছে ভিন্ন পন্থা। বোরকা পরে কৌশলে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করতে হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় কটাই মিয়াকে বিয়ানীবাজার থানায় একটি হত্যা মামলার রায়ে ১৯৯৫ সালের ১৮ মার্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছিলেন আদালত। নেকবার গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হলেও দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে আত্মগোপন করে ছিলেন তিনি। গোপন সূত্রে পুলিশ জানতে পারে, লুকিয়ে মাদক ব্যবসা চালাচ্ছেন কটাই মিয়া। সম্প্রতি জেলা পুলিশ মাদকের বিরুদ্ধে ঝটিকা অভিযান শুরু করলে আবারও কটাইকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হয়। গত ২৫ আগস্ট তার বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ।পুলিশের অভিযান টের পেয়ে পালিয়ে যান কটাই।তবে তার বাড়ি থেকে ৫০ বোতল ভারতীয় মদ উদ্ধার করা হয়। এরপর এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে কটাইয়ের গতিবিধির ওপর নজরদারি চালায় পুলিশ।

একপর্যায়ে তার অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে গতকাল মঙ্গলবার মাদকবিরোধী সেলের অফিসার ইনচার্জ সজল কুমার কানুর নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয়। অভিযানের প্রথম ভাগে দুজন পুলিশ সদস্য বোরকা পরে নারী সেজে কটাইয়ের বাড়িতে যান।

পরে কৌশলে কটাইয়ের সঙ্গে দেখা করে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

অভিযানের বিষয়ে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.আমিনুল ইসলাম বলেন কটাই মিয়াকে সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।এ ছাড়া গত ২৫ আগস্ট তার বাড়ি থেকে মাদক উদ্ধারের ঘটনায় বিয়ানীবাজার থানায় মাদক আইনে একটি এবং গ্রেপ্তারের সময় আরও মাদক উদ্ধার করার পর আরও একটি মামলা হয়েছে।বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close