আপনারা খাবেন? ঢেলে দেই? তাহেরীর বিরুদ্ধে মামলা


ধর্মীয় অনুভূতি ও মূল্যবোধের ওপর আঘাত সৃষ্টির অভিযোগে দাওয়াতে ঈমানী বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মুফতি মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন আত্ব তাহেরীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।রোববার (১ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনাল

আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে মামলাটি করেন ঢাকা আইনজীবী সমিতির কার্যকরী সদস্য মো. ইব্রাহিম খলিল।ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৮ ও ৩১ ধারায় মামলাটি করা হয়।মামলার বাদী ইব্রাহিম খলিল আরজিতে উল্লেখ করেন,

আসামি একজন ভণ্ড।তিনি নিজেকে মুফতি দাবি করলেও ইসলাম সম্পর্কে তার জ্ঞান নিয়ে সন্দেহ আছে।ওয়াজ-মাহফিলে আসামি ভক্তদের নিয়ে নেচে গান গাওয়া শুরু করেন।ইসলাম ধর্মের পথপ্রদর্শক হজরত মুহম্মদ (সা.) এর আদর্শ ও পবিত্র ধর্মগ্রন্থ ওয়াজ

মাহফিলের মধ্যে নাচ-গান সমর্থন করে না।ইসলামের রীতিনীতি অনুযায়ী আসামির কর্মকাণ্ড মুনাফেকির শামিল।

এক ব্যক্তির উক্তি দিয়ে তার বিড়ি খাওয়ার দোয়াটিও ইসলামের কোথাও নেই।তার এসব বক্তব্যে ইসলাম ধর্মকে ব্যঙ্গ ও অবমাননা করা হয়েছে।বসেন বসেন বইসা যান,ঢেলে দেই’এসব বাক্য ওয়াজে ব্যবহার করা হয়,যা সম্পূর্ণ অশ্লীল।ইসলাম ধর্মে এ রকম শব্দের

উল্লেখ নেই। কিছু কিছু ইউটিউবারকে তিনি ধান্দাবাজ বলেও উল্লেখ করেন।সম্প্রতি দাওয়াতে ঈমানী বাংলাদেশ নামের একটি

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মুফতী মুহম্মদ গিয়াস উদ্দিন আত্ব তাহেরীর একটি ওয়াজের অংশ বিশেষ ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।‘কেউ কথা কইয়েন না, একটু চা খাব? খাই একটু? আপনারা খাবেন? ঢেলে দেই? ঢেলে দেই? … ‘ভাই পরিবেশটা সুন্দর

না? কোনো হইচই আছে? আমি কি কাউকে গালি দিয়েছি? কারোর বিরুদ্ধে বলতেছি? এরপরও সকালে একদল লোক বলবে,

তাহেরী বালা না।২০১৮ সালের ডিসেম্বরে জিকিরের সময় নেচে-গেয়ে ‘বসেন বসেন, বইসা যান’ বলায় সমালোচিত হন তাহেরী। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে নিয়ে তৈরি হয়ে নানা ট্রল ও ভিডিও। এরপর কিছুদিন ওয়াজ বন্ধ রেখেছিলেন তিনি।

সম্প্রতি ফের আলোচনায় এলেন এই বক্তা।এছাড়া, উত্তরবঙ্গের একটি জেলায় এক ওয়াজ মাহফিলে কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের ‘পোলা তো নয় সে যে আগুনের গোলা রে’ গানটি নেচে-গেয়ে উপস্থাপন করায় ইসলামী আলোচকদের সমালোচনার মুখে পড়েন

তাহেরী।ওয়াজ মাহফিলে নাচ ও গানের বিষয়ে সম্প্রতি তিনি বলেন, এটা গান না।এগুলো করে আমি পোলাপাইনদের কৌশলে লাইনে আনি।বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open