নার্সের ভুলে পাঁচ মাসের শিশুর মৃত্যু

সুনামগঞ্জে নার্সের ভুলে পাঁচ মাসের এক শিশুর মারা যাওয়ার অভিযোগ করেছে তার পরিবার। বুধবার সন্ধ্যায় সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে এই ঘটনা ঘটেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় মঙ্গলবার সকালে তানভির আহমেদ নামে পাঁচ মাস বয়সী ওই শিশুটিকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর আগে তার পরিবার শিশু চিকিৎসক এনামুল হককে ব্যক্তিগত চেম্বারে দেখালে তিনি শিশুটিকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তির নির্দেশনা দেন। এ সময় সেখানে কর্তব্যরত নার্সরা ডা. এনামুল হকের প্রেসক্রিপশন না দেখে আরেকজনের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী সেবা দেন।

এ সময় শিশুটির অবস্থার অবনতি হলেও তাকে কোনো রকমের উন্নত চিকিৎসা দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবার।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় শিশুটির অবস্থা আরও খারাপ হলে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে নেয়ার পরে শিশুটি মারা যায়।

বাবা শফিনূর মিয়া বলেন, মঙ্গলবার ডা. এনামুল হকের কাছে ছেলেকে দেখাই। তিনি নিউমোনিয়া হয়েছে জানিয়ে তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করার কথা বলেন। কিন্তু সেখানে নেয়ার পর আমার ছেলেকে ভুল চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন,নার্সরা ডা. এনামুল হকের চিকিৎসাপত্র না দেখে ডা. সামিউল হকের চিকিৎসাপত্র দেখে অন্য শিশুর চিকিৎসা আমার ছেলেকে দিয়েছে। তারা ভুল চিকিৎসা দিয়ে আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে।

শিশুটির মা তারাবুন বেগম বলেন, আমার বাচ্চাটা মঙ্গলবার রাত থেকেই কষ্ট করতেছে। আমি মাঝরাতে নার্সকে অনেকবার ডাকলেও তিনি আমাকে খুব বাজে ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং কিছু করতে পারবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। আজ তাদের কারণে আমার ছেলে মারা গেল। আমি আল্লাহর কাছে এর বিচার দিলাম।

এ ঘটনার পর সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে বিক্ষোভ করে নিহতের পরিবার। এ সময় তারা চিকিৎসক-নার্সসহ এ ঘটনায় জড়িত সবার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে জেলা সিভিল সার্জন ডা. আশুতোষ দাশ বলেন, এই ঘটনার পর তাৎক্ষণিকভাবে সে সময়ে দায়িত্বরত চিকিৎসক-নার্সকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া ডা. বিশ্বজিৎ গোলদারকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন,এই ঘটনায় যদি কোনো ডাক্তার বা নার্স জড়িত থাকেন তাহলে তাকে অবশ্যই শাস্তির আওতায় আসতে হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open