বড়লেখায় সালিসি বৈঠক রূপ নিল রূপ নিল রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে পুলিশসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছেন।
শনিবার (১০ই আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার দাসেরবাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।এ সময় ১০টি গাড়ি এবং ২৫টি দোকান ভাঙচুর করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কমপক্ষে ৮০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দাসেরবাজার ইউনিয়নের লঘাটি ও সুড়িকান্দি গ্রামবাসীর মধ্যে একটি পূর্ব-বিরোধের ঘটনা মীমাংসার জন্য শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দাসেরবাজারে উভয় পক্ষের লোকজন বৈঠকে বসেন। বৈঠক চলার সময় এক পক্ষের একজন বক্তব্য রাখতে গেলে অপর পক্ষের একজন তাতে বাধা দেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথাকাটাকাটি থেকে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় ৮০ রাউন্ড শর্ট গানের ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে পুলিশের একজন উপ পরিদর্শক (এসআই) সুব্রত কুমার দাস, কনস্টেবল তুহেলসহ উভয় পক্ষে প্রায় ৪০জন আহত হন। আহতদের মধ্যে পথচারীও রয়েছেন। এদের মধ্যে পুলিশসহ আটজন বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও অন্যরা স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।সংঘর্ষের সময় বাজারের ছোটবড় প্রায় ২৫টি দোকান ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এছাড়া মোটরসাইকেল, সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ ১০টি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় দাসেরবাজারের দোকানপাট বন্ধ রয়েছে।এ ব্যাপারে বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইয়াছিনুল হক জানান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে আনুমানিক ৮০ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি ছোঁড়া হয়েছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।

Sharing is caring!

Loading...
Open