‘টাকা ধার না দেয়ায়’বৃদ্ধ বাবার ওপর হামলা


সুরমা টাইমস ডেস্কঃ সিলেটের বিশ্বনাথে টাকা ধার না দেওয়ায় বাড়িতে গিয়ে বৃদ্ধ বাবাকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ ওঠেছে মনোয়ারা বেগম(৩৬)নামে এক নারীর বিরুদ্ধে।শনিবার রাত ১০টারদিকে উপজেলার পুরানগাঁও গ্রামের এ ঘটনা ঘটে।

ওইদিন রাতে স্বামী ও ভাড়াটে লোকদের নিয়ে মনোয়ারা বেগম তার বাবা সোবহান শাহ্(৯০)এর ওপর হামলা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় সোবহান শাহ’র মাথায় আঘাত লাগায় তিনি গুরুতর আহত হন।এসময় সোবহান শাহ’র আরেক মেয়ে আনরা বেগমসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা মনোয়ারা পক্ষের ওপর পাল্টা হামলা চালান।এ ঘটনায় মনোয়ারা বেগম ও তার স্বামী আক্তার হোসেনসহ (৩৮)সহ উভয় পক্ষে ৫জন আহত হন।বাকিরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিলেও রাতে বাবা-মেয়ে ও মেয়ে জামাইকে স্থানীয় কাদিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।রোববার দুপুরে চিকিৎসা নিয়ে বাবা সোবহান শাহ তার বাড়িতে আর মেয়ে মনোয়ারা বেগম স্বামীকে নিয়ে বিশ্বনাথ উপজেলা সদরের পার্শ্ববর্তি পূর্ব জানাইয়ার বাসায় ফিরেছেন।মনোয়ারার স্বামীর বাড়ি ছাতকের গোবিন্দ গঞ্জের পার্শ্ববর্তি নোয়াপাড়া গ্রামে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, প্রায় ২৭ বছর আগে ছাতকের নোয়াপাড়া গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের সঙ্গে বিয়ে হয় মনোয়ারার।তাঁর চার ছেলেমেয়ে তাদের তাদের নানাবাড়ি পুরানগাঁয়ে বসবাস করেন। দু’বছর আগে স্বামী গিয়াস উদ্দিন মারা যাওয়ায় তিনি একই গ্রামের আক্তার হোসেনের সঙ্গে পালিয়ে বিয়ে করেন। দীর্ঘদিন থেকে তারা পূর্ব জানাইয়ায় ভাড়া থাকেন।স্বমী আক্তার কর্মজীবী না হওয়ায় কিছুদিন পরপর বাবার বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে সংসার চালাতে হয় মনোয়ারাকে।সম্প্রতি ৫০হাজার টাকা ধার চাইলে বাবা সোবহান এতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

সোবহান শাহ্ বলেন ৫০হাজার টাকা ধার না দেওয়ায় তার মেয়ে ও জামাতা আরও কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে বাড়িতে গিয়ে আমার ওপর হামলা করে।মনোয়ারা বেগেম টাকার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন আমি হামলা করিনি বরং পারিবারিক কলহের জেরে বাবা ও ছোটবোন আমাদের উপর হামলা করেছেন।বিশ্বনাথ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম মুসা বলেন বিষয়টি তদন্তাধীন আছে। মামলা দেওয়া হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open