ঈদের বন্ধে সারা দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে পারে ডেঙ্গু


বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা প্রকাশ করেচেন, এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু ভাইরাসের বিস্তার এখন পর্যন্ত শহরগুলোতে সীমাবদ্ধ থাকলেও ঈদের বন্ধে তা সারা দেশ ব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে পারে। ডেঙ্গু আক্রান্তরা ঈদের ছুটিতে গ্রামে যাওয়ার পর গ্রামে থাকা এডিস মশা তাদের কামড়ালে তার মাধ্যমে ভাইরাস ছড়াবে অন্যদের মাঝে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেশন বিভাগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সোমবার বিকেলে ডেঙ্গু নিয়ে এমন আশঙ্কার কথা জানালেন বিভাগটির শিক্ষকরা।বিভাগের সভাপতি ড. তাজউদ্দিন সিকদার বলেন, যেসব এলাকায় এখনো ডেঙ্গু ছড়ায়নি সেসব এলাকায়ও কিন্তু এডিস মশা রয়েছে। ফলে ডেঙ্গু আক্রান্তরা শহর থেকে গ্রামে গেলে তাদেরকে এডিস মশা কামড়ালে ডেঙ্গু ভাইরাস বহন করতে থাকবে মশাগুলো। ,

সেই মশা সুস্থ ব্যক্তিকে কামড়ালে তারাও আক্রান্ত হয়ে পড়বেন। এভাবে মশার মাধ্যমে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে দেশময়। ফলে এ সময় দেশবাসীকে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে।তিনি আরও বলেন, ২০০০ সাল থেকে বাংলাদেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব শুরু হয়। তবে এ বছরের ডেঙ্গু রোগের লক্ষণের সঙ্গে বিগত বছরের ডেঙ্গু রোগের কোণ মিল নেই। অনেকে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন। এ বছর এখনো পর্যন্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০-১৫ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হতে পারে বলে জেনেছি। .

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেশন বিভাগ যেহেতু বাংলাদেশের একমাত্র হেলথ রিলেটেড এডুকেশনাল প্রতিষ্ঠান, সেই জায়গা থেকে সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে আমরাও এগিয়ে এসেছি। আমরা বিভাগের পক্ষ থেকে প্রতিটি অনুষদে প্রিভেনশনাল সেল চালু করেছি। এ ছাড়া বিভাগের পক্ষ থেকে ডেঙ্গু টেস্টের কার্যক্রম আমরা হাতে নিয়েছি। ,

ডেঙ্গুর মহামারি আকার ধারণ করার ব্যাপারে যে বিতর্ক রয়েছে সে সম্পর্কে জানতে চাইলে বিভাগের প্রভাষক ডা. সাবরীনা মুনাজিলিন সাংবাদিকদের বলেন, বিগত বছরগুলোর তুলনায় বর্তমানে শহরগুলোতে ডেঙ্গু বিস্তারের যে মাত্রা তাকে আমাদের একাডেমিক জ্ঞানে মহামারিই বলতে হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close