কানাইঘাটে দুর্ধর্ষ ‘ডাকাত’ আসকর গ্রেফতার


অবশেষে দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর কানাইঘাট থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছে একাধিক ডাকাতি মামলার আসামী দুর্ধর্ষ ডাকাত নানা অপরাধ মূলক কর্মকান্ডের হুতা আসকর ডাকাত (৩০)।গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নানা কৌশল অবলম্বন করে কানাইঘাট লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপির সীমান্তবর্তী মিকিরপাড়া গ্রামের আব্দুল খালিকের পুত্র এলাকার ত্রাস সৃষ্টিকারী দু’টি ডাকাতি মামলার ওয়ারেন্ট ভ‚ক্ত ও একটি ধর্ষন মামলার এফআইআর ভ‚ক্ত আসামী আসকর ডাকাত কে তার নিজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন থানার সেকেন্ড অফিসার এস.আই স্বপন চন্দ্র সরকার, এএসআই সুফিয়ান ও এএসআই শফিক। থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, আসকর ডাকাতি, চুরি, এলাকায় মাদকদ্রব্য বেঁচাকেনা সহ নানা ধরনের অপরাধ কর্মকান্ডে জড়িত। সে নানা অপরাধের সাথে জড়িত থাকলেও ভয়ে এলাকার লোকজন তার বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস পেত না। থানা পুলিশ বিভিন্ন সময় তাকে গ্রেফতার করতে অভিযান চালালেও দুর্দান্ত আসকর ডাকাত পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে চলে যেত। জানা যায়, ৬ মাস পূর্বে এই আসকর ডাকাত মিকির পাড়া গ্রামের অসহায় দরিদ্র পরিবারের তেরাই মিয়ার কিশোরী মেয়ে (১৪) কে তার বাড়ী থেকে জোরপূর্বক ভাবে অপহরণ করে নরসিংদি জেলা ও মৌলভীবাজারের বড়লেখা সহ বিভিন্ন স্থানে আটক করে এ কিশোরী মেয়েকে দিনের পর দিন ধর্ষন করে।

গত ১৯ জুলাই কৌশলে মেয়েটি বড় লেখা থেকে একটি তালাবদ্ধ ঘর হতে বেরিয়ে নিজ বাড়ীতে চলে আসে এবং তার উপর লোমহর্ষক নির্যাতনের ঘটনা এলাকার লোকজন কে অবহিত করে। পরে মেয়েটি কে ওসমানী হাসপাতালের ওসিসি বিভাগে ভর্তি করা হয়। নিরীহ তেরাই মিয়া আসকরের ভয়ে থানায় পর্যন্ত কোন অভিযোগ দায়ের করতে সাহস পাননি। থানার ওসি আব্দুল আহাদ এ ঘটনাটি জানতে পেরে নানা কৌশল অবলম্বন করেন। কিশোরীকে তার সাথে বিয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে একটি ফাঁদ পেতে গতকাল আসকর ডাকাতকে পুলিশ গ্রেফতার করে। কিশোরী মেয়েটিকে গণধর্ষনের ঘটনায় ডাকাত আসকরের বিরুদ্ধে ধর্ষন মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে থানার ওসি আব্দুল আহাদ জানিয়েছেন।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, সন্ত্রাসী আসকর এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছিল। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করায় এলাকার লোকজনের মধ্যে স্বস্থি ফিরে এসেছে। থানায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাত আসকর তার নানা অপকর্মের কথা স্বীকার করেছে এবং আইন শৃংখলা বাহিনীর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করার জন্য ডাকাত আসকর আলিম উদ্দিন নামে এক সাংবাদিক কে মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে ছিল বলেও স্বীকার করে।

Sharing is caring!

Loading...
Open