মেয়ের গৃহশিক্ষকের সঙ্গে মায়ের পরকীয়া,অতঃপর স্বামীকে বালিশ চাঁপা দিয়ে হত্যা

সুরমা টাইমস ডেস্ক :: মেয়ের গৃহশিক্ষকের সঙ্গে স্ত্রীর পরকীয়ার সম্পর্কের জেরে খুন হলেন ভারতের কাটোয়ার এক যুবক। প্রথমে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে হত্যার চেষ্টা ও পরে বালিশ চাপা দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয় তাকে।

পরে নিহতের ছেলের জবানবন্দিতে ধরা পড়ে গেছেন অভিযুক্ত দু’জন। কাটোয়ার বিজনগড় গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। জানা গেছে, নিহতের নাম সুজিত মন্ডল।

পুলিশ বলছে, গত বৃহস্পতিবার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কাটোয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সন্দেহ হয়। সেই সন্দেহের জেরে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ। তাতেই বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

পুলিশের কাছে সুজিতের ১০ বছরের ছেলে জানিয়েছে, বোনের গৃহশিক্ষক নয়ন পাল ও তার মা মিলে বালিশ চাপা দিয়ে বাবাকে মেরে ফেলেছে। ঘটনাটি দেখে ফেলায় তাকেও মেরে ফেলার হুমকি দেয় নয়ন।

ছেলের জবানবন্দির পর নয়ন পাল ও সম্পা মন্ডলকে চাপ দেয় পুলিশ। তাতেই বেরিয়ে আসে পুরো ঘটনা।

পুলিশ জানিয়েছে, দীর্ঘ দিন ধরে পরকীয়ার সম্পর্ক রয়েছে সম্পা মন্ডল ও নয়ন পালের। সেই সম্পর্কের জেরেই স্বামী সুজিত মন্ডলকে খুনের পরিকল্পনা করে ফেলেন সম্পা।

গত বুধবার রাতে সুজিতকে খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে দেন তিনি। সেই ওষুধ এনে দিয়েছেন নয়ন। সকালে দেখা যায় সুজিত বেঁচে রয়েছেন। সেই খবর সম্পা নয়নকে জানান। সম্পার বাড়িতে চলে আসেন নয়ন। তারপর বালিশ চাপা দিয়ে সুজিতকে মেরে ফেলেন দু’জন মিলে। ঘটনাটি দেখে ফেলে সম্পার ছেলে। সম্পা ও নয়নকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

Sharing is caring!

Loading...
Open