ভেঙেই ফেলা হচ্ছে সিলেট নগরীর শতবর্ষী স্থাপনা আবুসিনা ছাত্রাবাস


সুরমা টাইমস ডেস্কঃ আপত্তি-বিক্ষোভ উপেক্ষা করে ভেঙেই ফেলা হচ্ছে সিলেট নগরীর শতবর্ষী স্থাপনা আবুসিনা ছাত্রাবাস। মঙ্গলবার দুপুর থেকে ঐতিহ্যবাহী এ স্থাপনা ভাঙ্গার কাজ শুরু করে গনপূর্ত বিভাগ।মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুর থেকে ছাত্রাবাস ভবনের টিনের চাল খোলার কাজ শুরু করতে দেখা যায়। তবে এ ব্যাপারে গণপূর্ত বিভাগের কারো সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।আসাম ও ব্রিটিশ স্থাপত্যরীতির নান্দনিক স্থাপনা ১৬৯ বছরের ঐতিহ্যের স্মারক আবুসিনা ছাত্রাবাস ভবন রক্ষার দাবি জানিয়ে আসছিলো বিভিন্ন নাগরিক সংগঠন। এই দাবিতে গত কয়েক মাস ধরে নগরীতে বিভিন্ন প্রতিবাদী কর্মসূচীও পালন করে এ সংগঠনগুলো।সিলেট নগরের কেন্দ্রস্থলে ঐতিহাসিক আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের দক্ষিণপ্রান্তে শতবর্ষী এই স্থাপনা ভেঙে ২৫০ শয্যার সিলেট জেলা হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগ নেয় সরকার। গত মার্চ থেকে হাসপাতাল নির্মাণের প্রািথমিক কাজ শুরু হয়। বিষয়টি নজরে আসলে ছাত্রাবাস ভবন রক্ষার দাবি জানায় বিভিন্ন সংগঠন। এই দাবিতে আন্দোলনে নামে সংগঠনগুলো।

ছাত্রাবাস ভবন ভাঙ্গার কাজ শুরু হওয়ার সংবাদে ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন, এই ভবন রক্ষার নাগরিক আন্দোলনের সংগঠক ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন, সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম। এই ভবন ভাঙার প্রতিবাদে বুধবার ( ১৭ জুলাই) সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম বলেন, শতবর্ষী এই স্থাপনা রক্ষার জন্য সিলেটর সচেতন নাগরিকবৃন্দ অনেক আন্দোলন করেছেন। এত কিছুর পরও রক্ষা করা যাচ্ছে না এই ঐতিহাসিক ভবন। এই ভবন ভাঙলে ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করবে না। সিলেটের ঐতিহ্য রক্ষা করতে না পাড়ার জন্য আগামি প্রজন্মের কাছে সকলকে জবাবদিহিতা করতে হবে।

উল্লেখ্য, ১৮৫০ সালে সিলেট নগরের কেন্দ্রস্থলে ইউরোপিয়ান মিশনারিরা এই ভবনের প্রথম-পর্বের নির্মাণ কাজ শুরু করেন। প্রায় তিন একর জায়গাজুড়ে প্রতিষ্ঠিত এই ভবন আসাম ও ব্রিটিশ স্থাপত্যরীতির নান্দনিক স্থাপনা। এর সাথে দুইটি বিশ্বযুদ্ধ ও মুক্তিযুদ্ধের বুদ্ধিজীবী হত্যার স্মৃতিজড়িত। পুরাতন মেডিকেল ভবন বা ‘আবুসিনা ছাত্রাবাস ভবন’ নামে পরিচিত এই ভবনটি এ অঞ্চলের শত বছরের ইতিহাস ঐতিহ্যের স্মারক। সিলেট ভূকম্পপ্রবণ এলাকা হওয়ায় ১৮৬৯ ও ১৮৯৭ সালের ভূমিকম্পে হাজার বছরের পুরনো বিভিন্ন শাসনামালের প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনাগুলো ধ্বংস হয়। টিকে থাকা হাতগোনা কিছু প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনও বিনষ্ট হতে চলেছে। তাই এই শতবর্ষী আবু সিনা ছাত্রাবাস রক্ষার দাবি জানানো হয়।।

Sharing is caring!

Loading...
Open