টিকটক ভিডিও বানাতে নদীতে ঝাঁপ: ৩ দিন পর মিলল লাশ

সুরমা টাইমস ডেস্কঃ সিলেটে ধীরগতিতে (স্লো-মোশন) টিকটক ভিডিও বানানোর জন্য সুরমা নদীতে ঝাঁপ দেয়া নিখোঁজ কিশোর সামাদের লাশ তিনদিন পর পাওয়া গেছে।

সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুরে বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজি সুরমা নদীতে লাশ ভেসে উঠে।
জালালাবাদ থানার ওসি অকিল মুন্সি ও বিশ্বনাথ থানার ওসি মো. সামছুদ্দোহা লাশ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
জানা যায়, শুক্রবার (১২ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সিলেট-সুনামগঞ্জ মহাসড়ক সংলগ্ন তেমুখী এলাকায় শাহজালাল ৩ নম্বর সেতু থেকে টিকটক ভিডিও বানাতে তারা ঝাঁপ দিলে নিখোঁজ হয় হয় সামাদ। নিখোঁজের দুই দিন পর সামাদের বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজি সুরমা নদীতে ভেসে উঠে। স্থানীয় দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধারের জন্য ঘটনাস্থলে রওয়ানা দিয়েছে।

বিশ্বনাথ থানার ওসি মো. সামছুদ্দোহা বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে লাশ পাওয়ার খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (১২ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সিলেট-সুনামগঞ্জ মহাসড়ক সংলগ্ন তেমুখী এলাকায় শাহজালাল ৩ নম্বর সেতু থেকে টিকটক ভিডিও বানাতে বাজি ধরে সুরমা নদীতে ঝাঁপ দেয় দুই কিশোর। এদের মধ্যে একজন তীরে ফিরতে পারলেও নিখোঁজ ছিল আবদুস সামাদ নামের অপরজন। নিখোঁজ আবদুস সামাদ নগরের বাগবাড়িতে। পরিবারের সঙ্গে থাকতো সে। এরা প্রত্যেকেই নগরীর আলাদা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র।

Sharing is caring!

Loading...
Open