টিলা কাটার দায়ে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা

নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে একটি প্রভাবশালী চক্র জৈন্তাপুর উপজেলার টিলা কেটে ধ্বংস করছে প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যকে। এতে করে হুমকিতে পড়ছে পরিবেশ ও জীববৈচিত্র। টিলা কাটারোধে প্রশাসনকে অবগত করলেও সে সময় কোনো অভিযান চালানো হয় না। টিলা কাটার ব্যাপারে এলাকার লোকজন প্রশাসনকে তিনদিন আগে অবগত করলেও সে সময় কোনো অভিযান পরিচালনা করা হয় নি।

অবশেষে মঙ্গলবার অভিযানে নামে উপজেলা প্রশাসন। দুপুর ১২টায় সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ফতেপুর (হরিপুর) ইউপির শিকারখাঁ গ্রামের মরহুম শাহেদ আলীর বাড়ীতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন ভারপ্রাপ্ত জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পাল। এসময় সাথে ছিলেন বন ও পরিবেশ অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী পরিচালক সানোয়ার হোসেন, জৈন্তাপুর মডেল থানার এ.এস.আই মনিরুল ইসলামের নেতৃত্ব একদল পুলিশ ফোর্স।

মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সময় আব্দুল মুতলিব ও আব্দুস সালাম বাড়ীতে কৌশলে পালিয়ে যায়। অপরদিকে আব্দুল মুতলিবের বোন টিলা কাটার কথা স্বীকার করেলে প্রাথমিক ভাবে মোবাইল কোর্ট এর নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট বিশ্বজিৎ কুমার পাল ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করে মিনারা বেগমকে সর্তক করে পাহাড় ও টিলা কর্তন না করার নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট বিশ্বজিৎ কুমার পাল বলেন- গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টিলা কর্তনের বিষয়টি জানতে পারি এবং তাৎক্ষনিকভাবে বন ও পরিবেশ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে প্রাথমিক ভাবে টিলা কাটার অপরাধ স্বীকার করায় ৪০হাজার টাকা জরিমান করি। উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে। অচিরেই উপজেলা অন্য স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হবে। টিলা কর্তনকারী যতবড় শক্তিশালী হউক না কেন তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open