দীর্ঘ ১০ বছর পর কুলাউড়া উপজেলা বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে


দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর পর আগামী ১৫ জুন কুলাউড়া উপজেলা বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এতে কাউন্সিলের মাধ্যমে আহ্বায়ক কমিটির সদস্যদের ও ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি সাধারণ সম্পাদকদের সরাসরি ভোটে উপজেলা বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করা হবে। এর ফলে এক দশক পর কুলাউড়া উপজেলা বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হতে যাচ্ছে।

কুলাউড়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা এতদিন দুটি গ্রুপে বিভক্ত ছিলেন। দলীয় কর্মসূচি ও বিভিন্ন আন্দোলনে উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্ধরা বিভক্ত হয়ে পড়তেন। সকল নেতৃবৃন্দের স্বমন্বয়ে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নের্তৃত্ব আসলে নেতাকর্মী রা ঐক্যবদ্ধ হয়ে দলীয় কর্মসূচি পালন করবেন। সম্মেলনে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মোট ১৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। এবং কাউন্সিলে উপজেলা আহ্বায়ক কমিটির ১৩ সদস্য ও ১৩ ইউনিয়নের সভাপতি-সম্পাদক ২৬ জন কাউন্সিলর গোপন ব্যালটে ভোটের মাধ্যমে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করবেন। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ দেখা দিয়েছে। এবং উপজেলা আহ্বায়ক কমিটি গত দেড় মাস ধরে ১৩ ইউনিয়নের কমিটি ও পৌর কমিটি গঠনে ব্যস্ত সময় পার করেন।

নেতাকর্মীদের ধারণা ‘দলীয় বিভক্তিতে উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়েছিলো। গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় দ্বিধা দ্বন্ধ ভুলে একসাথে নির্বাচনী মাঠে কাজ করেছিলেন। এই ঐক্যবদ্ধতা ধরে রাখতে উপজেলা নেতৃবৃন্দরা সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ের উদ্যোগ নেন। কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব আসলে আগামীতে জাতীয় স্বার্থ ও দলের চেয়ারপার্সনের মুক্তির আন্দোলনসহ সকল কর্মসূচি আরো বেগবান হবে।’

সম্মেলন উপলক্ষে ১৩ জুন বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টার দিকে কুলাউড়া পৌর শহরের একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে কুলাউড়া উপজেলা বিএনপি।

সংবাদ সম্মেলনে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এএনএম আবেদ রাজা বলেন, দীর্ঘদিন উপজেলা বিএনপির কোন নতুন কমিটি না থাকায় এবং দরীয় বিভক্তি থাকায় সাংগঠনিক কার্যক্রম অনেকটাই স্থবির হয়ে পড়েছিলো। বিএনপি আজ ঐক্যবদ্ধ। বিগত ৩০ ডিসেম্বরের প্রশ্নবিদ্ধ জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কুলাউড়া বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। ইতোমধ্যে কুলাউড়া পৌরসভা ও উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের কাউন্সিল, সম্মেলন ও কমিটি গঠন সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ১৫ জুন উপজেলা বিএনপির কাউন্সিল ও সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচন করা হবে। এতে দলের ত্যাগী নেতারা মূল্যায়ন পাবেন এবং দ্বিধা বিভক্তিও থাকবেনা নেতাকর্মীদের মধ্যে। বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ বিভিন্ন আন্দোলন এবং দলীয় কর্মসূচি নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে পালন করবেন। এছাড়া দলের এবং অংগসংগঠনের কার্যক্রম আরো বেশি ত্বরান্বিত হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘দীর্ঘদিন দুই ভাগে বিভক্ত উপজেলা বিএনপির দু’গ্রুপের নেতৃবৃন্দরা আজ এক মঞ্চে। গত ৩০ মার্চ কুলাউডার বিভক্ত দুটি কমিটি বিলুপ্ত করে উপজেলা ও পৌর বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে জেলা বিএনপি। ৩ মাসের মধ্যে কাউন্সিল ও সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয় জেলা বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় গত প্রায় দেড় দুই মাস ধরে পৌরসভা ও কাউন্সিলরদের গোপন ব্যালটের মাধ্যমে পৌরসভা ও উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন কমিটি ইতোমধ্যে গঠন করা হয়েছে। এর আগে বিভিন্ন ইউনিয়নের মোট ১২৬টি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামী ১৫ জুন উপজেলার আহ্বায়ক কমিটির ১৩জন সহ ১৩ ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মোট ২৬ জন মিলে মোট ৩৯ জন কাউন্সিলর তাদের গোপন ব্যালটের মাধ্যমে উপজেলা বিএনপির নতুন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন ভুঁইয়া, যুগ্ম আহ্বায়ক রফিক আহমদ, পৌর বিএনপির নবনির্বাাচিত সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল আলম সোহেল, উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আশরাফ আলী চৌধুরী, রফিক মিয়া ফাতু প্রমুখ।

এসময় আগামী ১৫ জুন উপজেলা বিএনপির কাউন্সিলে সভাপতি পদপ্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও জেলা বিএনপির সদস্য কামাল উদ্দিন আহমদ জুনেদ, উপজেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জয়নাল আবেদীন বাচ্চু, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা বিএনপির সদস্য এম এ মজিদ। সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা বিএনপির সদস্য রেদওয়ান খাঁন, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক জয়নাল আবেদীন খাঁন। সাংগঠনিক সম্পাদক পদপ্রার্থী ময়নুল হোসেন বকুল, বদরুল হোসেন খাঁন, দেলোয়ার হোসেন, সুফিয়ান আহমদ (প্রিন্স), আব্দুস সালাম উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open