গোয়াইনঘাটে এনজিও কর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :: সিলেটের গোয়াইনঘাটে সূর্যের হাসি ক্লিনিকের এক এনজিও কর্মীকে তুলে নিয়ে গণ ধর্ষন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের ও ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। আটক ব্যক্তি জৈন্তুাপুর উপজেলার হেমু মাঝের টুল গ্রামের ফয়জুর রহমানের ছেলে আব্দুল কাদির।

গত সোমবার বিকেলে গোয়াইনঘাট উপজেলার গুলনী চা বাগানে ধর্ষনের এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার বিকেলে সূর্যের হাসি ক্লিনিকের এক নারী এনজিও কর্মী হরিপুর বাজার থেকে সারীঘাট আসার জন্য সিএনজি চালিত অটো রিকশায় উঠে।

এ সময় চালকের চার সহযোগী যাত্রী বেশে একই অটো রিকশায় উঠে। পরে অটো রিকশাটি সারীঘাট না গিয়ে উল্টো পথে ফতেহপুরের গুলনী চা বাগানেরর নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েটিকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে অটো রিকশা থেকে নামিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষন করে আব্দুল কাদিরসহ তার আরেক সহযোগী।

এ সময় মেয়েটির চিৎকার শুনে চা বাগানের পাহারাদার ও স্থানীয় এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে মেয়েটিকে উদ্ধার ও ধর্ষক আব্দুল কাদিরকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।এ ঘটনায় ধর্ষিত ওই নারী বাদী হয়ে সোমবার রাতে আব্দুল কাদিরসহ তার অপর চার সহযোগীর বিরুদ্ধে গোয়াইনঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন।

থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায় ঘটনার সত‍্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গুলনী চা বাগানে ভিকটিম এনজিও কর্মী ধর্ষনের এঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত আব্দুল কাদির নামের একজনকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার অপর আসামীদের আটক করতে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে তিনি জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close