মৌলভীবাজারে এলাকাবাসীর বাধায় দন্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীর জানাজা পণ্ড

সুরমা টাইমস ডেস্কঃ মৌলভীবাজারে এক যুদ্ধাপরাধীর জানাজার নামাজ এলাকাবাসীর বাধার মুখে পণ্ড হয়ে গেছে। পরে পারিবারিকভাবে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল আদালতের দেওয়া রায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড প্রাপ্ত রাজনগর উপজেলার যুদ্ধাপরাধী সামছুল হোসেন তরফদার ওরফে আশরাফ (৬৫) বৃহস্পতিবার (১ মার্চ) রাতে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। শুক্রবার জুমার নামাজের পর উপজেলার কর্ণিগ্রামে জানাজার নামাজের আয়োজন করা হলে এলাকাবাসী তাতে বাধা দেন। পরে তার পুরনো গ্রামের বাড়িতে নিয়ে পারিবারিকভাবে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হয়েছে।

এব্যাপারে রাজনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মো. আছকির খান বলেন, সে আদালতের রায়ে সাজাপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীর জানাজায় অংশগ্রহণ করা মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসীর জন্য গৌরবের নয়। সে এই এলাকার অভিশাপ।

রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক জানান, সাজাপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী সামছুল হোসেন তরফদার দীর্ঘদিন থেকে পলাতক থাকার পর মৃত্যুবরণ করেছেন। শুক্রবার দুপুরে তার লাশ দাফন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটে জড়িত থাকার ৫টি অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ১০ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আদালত রাজনগর উপজেলার যুদ্ধাপরাধী সামছুল হোসেন তরফদার ওরফে আশরাফকে আমৃত্যু কারাদণ্ডাদেশ দেন। ওই মামলায় অভিযুক্ত পাঁচ জনের মধ্যে ২ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও ৩ জনকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়। সামছুল হোসেন পলাতক অবস্থায় ছিলেন।

২০১৪ সালে এদের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে প্রসিকিউশন। পরে ২৬ মে ট্রাইব্যুনালে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দাখিল করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে পরওয়ানা জারির পর ২০১৫ সালের ১৩ অক্টোবর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ওজায়ের আহমদ চৌধুরীকে মৌলভীবাজার শহরের চৌমোহনা ও আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত মৌলভী ইউনুছ আহমদকে সোনাটিকি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে রাজনগর থানা পুলিশ।

ওই মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীরা হলেন, রাজনগর উপজেলার জামুরা গ্রামের মৃত ফরজান আলীর ছেলে নেছার আলী (৭৫) ও গয়াসপুর গ্রামের মৃত আব্দুন নূর চৌধুরীর ছেলে ওজায়ের আহমদ চৌধুরী। অপর আসামী রাজনগর সদর ইউনিয়নের বাগাজুরা গ্রামের মৃত আত্তর মিয়া তরফদারের ছেলে সামছুল হোসেন তরফদার ওরফে আশরাফ (৬৫), সোনাটিকি গ্রামের মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে মৌলভী ইউনুছ আহমদ (৭১) ও উত্তর নন্দীউড়া গ্রামের মৃত আলকাছ মিয়ার ছেলে মোবারক মিয়াকে (৬৬) আমৃত্যু কারাদণ্ড দেন আদালত।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close