নিহত বেলাল’র হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে ভাতালিয়া এলাকায় বিক্ষোভ


নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট নগরীর ভাতালিয়া জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে নিহত আব্দুল কাদির বেলাল’র হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে শুক্রবার বাদ জুম্মা নগরীর ভাতালিয়া এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচী পালন করে বৃহত্তর ভাতালিয়াবাসী। বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর ভাতালিয়া জামে মসজিদের সামনে থেকে শুরু করে নগরীর লামাবাজার পুলিশ ফাঁড়ি সামনে গিয়ে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন বিক্ষোভকারীরা।

বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন, সালাউদ্দিন বক্স সালাই, আব্দুস সালাম, আব্দুর রকিব বাবলু, নাজিম উদ্দিন, বসর উদ্দিন, সহীদ আহমদ, সোয়েব আহমদ, সাব্বির আহমদ, নাজমুল ইসলাম রিপন,আব্দুস সহিদ সেলিম, মোস্তাক আহমদ, মাহবুব এলাহী, তোফায়েল আহমদ, জুনেদ আহমদ, রুবেল আহমদ, জুয়েল আহমদ, আলী হোসেন, লাব্বায়েক, খায়ের আহমদ, খায়রুল আমিন, সোহেল আহমদ, মো: জুয়েল আহমদ, মো: শহিন আহমদ মুন্না, মো: আলী আহমদ, লিমন আহমদ, বকুল আহমদ, আবু বক্কর সেলিম, জয়েল আহমদ, জাকারিয়া আহমদ, মতিউর রহমান মতি, জামেল আহমদ, মো: ইনুছ মিয়া, সালেহ আহমদ, মো: আকবর, মো: সাদ্দাম, শিপলু আহমদ, জুনেদ, রাসেল, ফুয়াদ, লিয়াকত হোসেন ,চয়ন ও খায়রুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ১১ ফেব্রুয়ারি নগরীর ভাতালিয়ায় জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে আহত হন ভাতালিয়া এলাকার মৃত আবদুল মন্নানের ছেলে আবদুল কাদির বেলাল (৩৮)। একই এলাকার বাসিন্দা মৃত আলাউদ্দিন এর পুত্র দেলওয়ার হোসেন (৪৫) আব্দুর কাদির বেলালের জায়গায় ঘর নির্মাণ করতে গেলে বেলাল তাতে বাধা প্রদান করে। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে দেলওয়ার হোসেন বেলালকে মারধোর করে বলে নিহতের পরিবারের দাবি।

গুরুতর আহতাবস্থায় বেলালকে দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে বুধবার বিকেল সাড়ে ৪ টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় বেলালের। সংঘর্ষের ঘটনার পরদিন ১২ ফেব্রুয়ারি বেলালের বড় ভাই সেলিম আহমদ ৪ জনকে আসামী করে সিলেট কোতোয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে দেলোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী রুপা বেগম, ছেলে দিদার রাজু এবং মেয়ে দিলরুবা আক্তার পপিকে আসামী করা হয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open