শেখ হাসিনা-জোকো বৈঠক : ৫ চুক্তি ও সমঝোতা সই


সুরমা টাইমস ডেস্ক ঃঃ বাংলাদেশ সফররত ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ রবিবার (২৮ জানুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে এই বৈঠক হয়। শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর তারা দ্বিপক্ষীয় বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন বলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সূত্রে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর উপস্থিতিতে বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বিষয়ক পাঁচটি চুক্তি ও সমঝোতা সই হয়েছে।

এর আগে সকাল ৯টা ৪৯ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এসে পৌঁছান ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টাইগার গেটে জোকো উইদোদোকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শিমুল হলে একান্ত বৈঠকে বসেন এশিয়ার দুই নেতা। একান্ত বৈঠক শেষে চামেলী হলে দুই দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসবেন তারা। পরে দুই নেতার উপস্থিতিতে করবী হলে কয়েকটি চুক্তি সই হয়।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে দুই দিনের সফরে শনিবার (২৬ জানুয়ারি) বাংলাদেশে এসেছেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট। শনিবার রাতে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে তার সরকারি সফর শুরু করেন। গণভবনের নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও উপস্থিত ছিলেন।

রবিবার সকালে প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। পরে তিনি ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান এবং বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘর পরিদর্শন করেন। রবিবার বিকালেই তিনি কক্সবাজারে যাবেন।

এদিকে, পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের মর্যাদাসহ তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারের রাখাইনে নিরাপদ ও স্থায়ী প্রত্যাবাসনে ইন্দোনেশিয়া সরকারের অব্যাহত সহযোগিতা কামনা করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। শনিবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে ইন্দোনেশিয়ার সফররত প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে রাষ্ট্রপতি এই অনুরোধ করেন। ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করেন। তিনি বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মর্যাদাসহ রাখাইনে তাদের নিরাপদ ও স্থায়ী প্রত্যাবাসনে ইন্দোনেশিয়া সরকারের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন।

দুই দিনের সরকারি সফর শেষে সোমবার (২৯ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় তার ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open