২০ দলীয় জোটের শরিকদের সঙ্গে পরামর্শ করতে বসছেন খালেদা জিয়া


সুরমা টাইমস ডেস্কঃঃ জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের তারিখ ঘোষণার প্রেক্ষাপটে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সঙ্গে বৈঠক করার পর এবার ২০ দলীয় জোটের শরিকদের সঙ্গে পরামর্শ করতে বসছেন খালেদা জিয়া।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন- রোববার (২৮ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টায় গুলশানে তাদের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এই বৈঠক হবে। “মিথ্যা মামলার রায়ের তারিখ ঘোষণায় সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে রাতে এই বৈঠক ডেকেছেন আমাদের চেয়ারপারসন।”

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) রাতে গুলশানের কার্যালয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকেও প্রধান আলোচ্য বিষয় ছিল এই মামলার রায়।

ওই বৈঠকের পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “এই রায়ের তারিখ ঘোষণাকে কেন্দ্র করে গোটা জাতি আজকে উদ্বিগ্ন ও ক্ষুব্ধ। আমরা মনে করি, এটা বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার জন্য এবং সকলের অংশগ্রহণে ইনক্লুসিভ ইলেকশন নষ্ট করার জন্য একটা গভীর ষড়যন্ত্র।”

দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে ‘বিচারের নামে সরকারি ষড়যন্ত্রের’ বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব।

রায়ের তারিখ ঘিরে কোনো কর্মসূচি থাকছে কি না-এ প্রশ্নে ফখরুল বলেন, “এটা জানাব রায় ঘোষণা হওয়ার পরে। পুরো বিষয়টা আমরা আবার জানাব রায় ঘোষণা হলেই।”

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করবে ঢাকার পঞ্চম জজ আদালত। বিএনপি-জামায়াত জোটের ২০০১-২০০৬ মেয়াদের সরকারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের ওই মামলার প্রধান আসামি।

অভিযোগ প্রমাণিত হলে এ মামলায় খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে। সেক্ষেত্রে তিনি আগামী নির্বাচনে অংশ নেওয়ার অযোগ্য হয়ে পড়বেন।

খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানও এ মামলার আসামি। মুদ্রা পাচারের দায়ে সাত বছর কারাদণ্ডের রায় মাথায় নিয়ে পালিয়ে আছেন দেশের বাইরে। এ মামলাতেও তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।

বিএনপি অভিযোগ করে আসছে, ক্ষমতাসীনরা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে ‘অন্তঃসারশূন্য’ এই মামলাকে এ পর্যন্ত নিয়ে এসেছে কেবল খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্য।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close