অবশেষে ছাত্রদল নেতা শিমু হত্যার ঘটনায় মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক:: সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসনাত শিমু হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করেছেন তার পিতা আব্দুল আজীজ । বুধবার (৩রা জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালি থানার ওসি গৌছুল হোসেন, তিনি বলেন-নিহত ছাত্রদল নেতা সিমু হত্যার ঘটনায় তার পিতা বাদী হয়ে ২০-৩০জনকে আসামী করে থানায় হত্যা মামলা নং-৭ দায়ের করেছেন। পুলিশ মামলার এজহার নামীয় আসামিদেরকে গ্রেপ্তার করার জন্য অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। আসামীদেরকে গ্রেপ্তারের স্বার্থে তিনি কারও নাম প্রকাশ করতে চাননি।

তিনি আরও জানান- ঘটনাস্থলের আশপাশের সিসি ক্যামেরা থেকে শিমু হত্যার কোন ভিডিও ফুটেজ পুলিশ পায়নি। মামলা যেহেতু হয়েছে পুলিশ মামলার এজহার নামীয় আসামিদেরকে ধরতে পারলেই পুরো বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারতি জানা যাবে।

উল্লেখ্য-গত সোমবার (১লা জানুয়ারি) বিকেলে সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্টে ছাত্রদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালীতে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয় আবুল হাসনাত শিমু, পরে তাকে ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা শিমুকে মৃত ঘোষণা করেন। গত মঙ্গলবার (২রা জানুয়ারি) দুপুরে কোতোয়ালি থানা পুলিশ শিমুর ময়না তদন্ত শেষে তার পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করলে বিকেলে শাহি ঈদগাহ ময়দানে প্রথম দফায় তার জানাজা সম্পন্ন হয়।

শিমুর কয়েকজন আত্মীয় লন্ডন থেকে দেশে আসায় ওই দিনই এশার নামাজের পর দরগাহ মসজিদে তার দ্বিতীয় দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে তাকে হযরত শাহজালাল (রহ.)-এর মাজারের কবরস্থানে দাফন করা হয়। শিমু নগরীর আরামবাগ এলাকার ২২ নম্বর বাসার বাসিন্দা। ব্যক্তিগত জীবনে শিমু বিবাহিত। জান্নাত নামে তাঁর ৫ বছরের একটি মেয়ে রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close