কানাইঘাট পৌরসভার মাসিক সভা বয়কট করলেন কাউন্সিলররা!

কানাইঘাট প্রতিনিধি:: কানাইঘাট পৌরসভার মাসিক সভা বয়কট করে মেয়রের বিরুদ্ধে মিছিল করেছেন কাউন্সিলররা। বরিবার সকাল ১১ টায় পৌর সভার নির্ধারিত মাসিক সভা ছিল। সেই সভা থেকে ১২ জন কাউন্সিলদের মধ্যে ৭জন কাউন্সিলর সভা বয়কট করে পৌরসভার অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এ সময় বাজারের হাজারো উৎসুক জনতা ভিড় জমান সেখানে। পরে তারা মিছিল সহকারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে মেয়র নিজাম উদ্দিনের নানা অপক্রর্মের কথা উল্লেখ করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায় কানাইঘাট পৌরসভার বর্তমান পরিষদের প্রায় ২ বছর অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত মেয়র নিজাম উদ্দিন মাসিক সভায় পৌরসভার রাজস্ব খ্যাত সহ আয় ব্যায়ের কোন ধরনের হিসাব প্রদান করেননি। এমনকি মাসিক সভার রেজিষ্টার খাতার স্বাক্ষরিত সিদ্ধান্তের কপি গোপন রাখা হয়। বিভিন্ন প্রয়োজনে কাউন্সিলারা এসব জানতে বা দেখতে চাইলে নারাজ থাকেন মেয়র নিজাম উদ্দিন। তারা অভিযোগ করে বলেন মেয়র তার নিজের মনগড়া আইনে নিজস্ব গতিতে পৌরসভার কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। এ নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে কাউন্সিলর ও মেয়রের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। কয়েক মাস পুর্বে পৌরসভার ৯জন কাউন্সিলর মেয়র নিজাম উদ্দিনের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরাবরে দিয়েছিল। পরে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপে তা সমাধান করা হয়েছে বলে জানান কাউন্সিলরা।

তারা উল্লেখ করে বলেন, এত কিছুর পরও মেয়র আবার তার পুরানো অভ্যাসে ফিরে গেছেন। তিনি পৌরসভার নিজস্ব কার্যালয় রেখে তার নিজস্ব ভবনে মাসে ৪০ হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে তৃতীয় তলায় অস্থায়ী কার্যালয় গড়ে তুলেছেন। গত মাসের মাসিক সভায় কাউন্সিলাদের দাবীর প্রেক্ষিতে তিনি বলেছিল আগামী মিটিংয়ে রাজস্ব খ্যাত সহ সকল হিসাব নিকাশ নিয়ে আলোচনা হবে। কিন্তু এরই মাঝে মেয়র নিজাম উদ্দিন তার কথা বদলীয়ে গত ২৮শে ডিসেম্বর নিজের মনগড়া এজেন্ডা দিয়ে মাসিক সভার চিটি ইস্যু করেছেন। গতকালের সেই নির্ধারিত সভায় ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুক আহমদ, ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাওলানা ফখরুদ্দীন, ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবিদুর রহমান, ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী শরীফুল হক, সংরক্ষিত ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসমা বেগম, ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আছিয়া বেগম, ১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রহিমা বেগম তাদের বক্তব্যে রাজস্ব খ্যাাত সহ গত সভার কথা উল্লেখ করে বক্তব্য রাখলে মেয়র নিজাম উদ্দিন তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। এতে তারা মাসিক সভা বয়কট করে মেয়রের কাছে হিসাব নিকাশ চেয়ে নানা শ্লোগান করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এতে ৭ জন কাউন্সিলরের সভা বয়কট ও উৎসুক মানুষের হট্রগোলে মেয়র নিজাম উদ্দিন মাসিক সভা মুলতবি করতে বাধ্য হন। এ ব্যাপারে মেয়র নিজাম উদ্দিন তার বিরুদ্ধী কাউন্সিলরদের সকল অভিযোগ অস্বীকার করে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান ২০১৬ সালের পহেলা মার্চ বর্তমান পৌর পরিষদ দায়িত্ব গ্রহণ করলে এখনো পুরো দুই বছর পুর্ণ হয়নি।

রাজস্ব খ্যাত সম্মন্ধে তিনি বলেন এ বিষয়ে দুইটি স্থায়ী কমিটি রয়েছে। সেখানে রাজস্ব খ্যাত নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ খ্যাতের উপর জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক বৃন্দ পৌরসভার কার্যালয় পরির্দশন করে তদন্ত করে সব কিছু সঠিক পেয়েছেন। পৌরসভার কার্যালয় নিয়ে কাউন্সিলরদের অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন পৌরসভার অবকাঠামো বিষয় পরিচালনা করতে তিনি মাসিক ৫ থেকে ৬ হাজার টাকার বিনিময়ে কানাইঘাট বাজারে অস্থায়ী কার্যালয় করেছেন। পৌরসভার কার্যালয়টি পরিত্যাক্ত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন তার আমলে কানাইঘাট পৌরসভা তৃতীয় থেকে দ্বিতীয় গ্রেডে উন্নীত হয়েছে। পৌরসভার উন্নয়ন দেখে উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক সাবেক মেয়র লুৎফুর রহমান ও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অধ্যক্ষ নয় প্রভাষক সিরাজুল ইসলাম সহ একটি কু-চক্রী মহল তার বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লেগেছে বলে তিনি দাবী করেছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close