ফাঁস হওয়া প্রশ্নে ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষা নেয়ার অভিযোগ

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। ভর্তি পরীক্ষা শুরুর ৮ ঘণ্টা আগে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয় বলে জানা গেছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রশাসন বলছে, ‘এ বিষয়ে তাদের কাছে এখনো তথ্য প্রমাণ আসেনি।’

শুক্রবার সকাল ১০-১১টা পর্যন্ত সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ওই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এই প্রতিবেদক বেলা ১০.৫৪ মিনিটে ফাঁস হওয়া ইংরেজি অংশের প্রশ্ন পান। যার সঙ্গে পরীক্ষা নেওয়া প্রশ্নপত্রের ইংরেজি অংশের হুবহু মিল পাওয়া যায়।

অন্যদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের কাছে বেলা ১০টা ৪৮ মিনিটে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে উল্লেখ করে একজন বাংলা অংশের প্রশ্নপত্র পাঠান। ওই শিক্ষক অনুষ্ঠিত পরীক্ষার বাংলা প্রশ্নপত্রের সঙ্গে পাঠানো প্রশ্নের হুবহু মিল পান। ক্ষোভের স্বরে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গর্বের জায়গা ছিলো ভর্তি পরীক্ষা। সেটাও শেষ হয়ে গেল!

গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটা থেকে ৩টার মধ্যে কয়েক জনের ই-মেইলে অনুষ্ঠিত হওয়া ভর্তি পরীক্ষার ইংরেজি অংশের ২৪টি প্রশ্ন পাঠানো হয়। পরীক্ষা শুরুর অন্তত আধা ঘণ্টা আগে কয়েক জনের মোবাইলে ওইসব প্রশ্নের উত্তরের কপি খুদেবার্তা হিসেবে পাঠানো হয় বলে জানা যায়। যা পরীক্ষা শেষে গতকালের ওই প্রশ্নগুলোর সঙ্গে আজকের প্রশ্নপত্রের অবিকল মিল পাওয়া যায়।

প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে এমন অভিযোগের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এম আমজাদ আলী বলেন, এমন কোনো তথ্য তাদের কাছে নেই। ডিজিটাল জালিয়াতি করায় মাস্টারমাইন্ড সহ ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়ে পরীক্ষার সমন্বয়ক সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক সাদেকা হালিম বলেন, আমি প্রশ্নপত্র দেখিও নাই, জানিও না। প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো খবর আমার কাছে নেই। তথ্য প্রমাণ পেলে কি ব্যবস্থা নেওয়া হবে এর জবাবে তিনি বলেন, ‘সেটা তদন্ত করে দেখতে হবে।’

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close