শিল্পী-সুরকার-গীতিকার আবদুল গফুর হালিকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দেয়ার দাবী

চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান ও মাইজভা-ারী গানকে আঞ্চলিকতার গন্ডি পেরিয়ে বিশ্ব দরবারে ও সংস্কৃতির বলয়ে সমাদৃত করার পেছনে বলিষ্ট ভূমিকা রেখেছেন প্রয়াত আবদুল গফুর হালি। নিজের মেধা, শ্রম, তীক্ষ্ম বুদ্ধি, বিচক্ষণতা ও যোগ্যতা দিয়ে অল্প শিক্ষিত হওয়ার পরও নিজেকে উচ্চ আসনে সমাহিত করেছেন আবদুল গফুর হালি। চট্টগ্রামের সংস্কৃতির জগতকে পরিপূর্ণ সমাদৃত করতে ও জননন্দিত করতে আবদুল গফুর হালি ছিলেন নিরলস, নিভৃতচারী ও সঙ্গীতপরিব্রাজক। তাঁর অকাল মৃত্যুতে জাতি একজন সংস্কৃতির ধ্রুবতারাকে হারাল। আবদুল গফুর হালির মূল্যায়ন ও অবদানকে স্বীকৃতি দেওয়া এবং চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান ও মাইজভা-ারী গানকে বাঙালির সংস্কৃতির বলয়ে আনা জরুরী। চট্টগ্রামের সংস্কৃতির মূল্যায়নে প্রয়াত আবদুল গফুর হালিকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দিতে হবে সরকারকে। সদ্য প্রয়াত আবদুল গফুর হালি স্মরণে আয়োজিত স্মরণ অনুষ্ঠান ও সঙ্গীত সন্ধ্যায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে প্রফেসর ড. গাজী সালেহ উদ্দিন উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

চট্টগ্রামের কৃতি সন্তান, বরেণ্য গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী আবদুল গফুর হালির স্মরণ অনুষ্ঠান ও সঙ্গীতসন্ধ্যা গতকাল ২০ জানুয়ারী বিকাল ৫ টায় নগরীর মোমিন রোডস্থ কদমমোবারক ইসলামাবাদী হলে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম বিভাগ ও ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিলের উদ্যোগে বিশিষ্ট নারীনেত্রী হাসিনা জাফরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ডীন ও অধ্যাপক ড. গাজী সালেহ উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি ও সংস্কৃতি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু, বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার সোসাইটির মহাসচিব লেখক এম নাজিম উদ্দিন চৌধুরী এ্যানেল। সভায় বক্তারা বলেন, চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানকে বাঙালি সংস্কৃতির বলয়ে আনার ক্ষেত্রে আবদুল গফুর হালির অবদান ও কর্মদক্ষতা চিরস্মরণীয়। যতদিন সংস্কৃতির বলয়ে ও মানুষের হৃদয়ে আঞ্চলিক গান ও মাইজভা-ারী গান জাগরূপ থাকবে ততদিন আবদুল গফুর হালি অমর হয়ে থাকবেন। বক্তারা আরো বলেন, যারা সৃষ্টিতে থাকেন, তারা অমর হয়ে থাকেন। আজীবন আবদুল গফুর হালি সৃষ্টিতে রত ছিলেন। তার অমর সৃষ্টিতে আঞ্চলিক গান ও মাইজভা-ারী গান বিশ্ব সমাদৃত। তার অমর সৃষ্টি অমর করে রাখবেন তাকে। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক স.ম. জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের সহ-সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক সুভাষ চৌধুরী টাংকু, দপ্তর সম্পাদক প্রকৌশলী টি কে সিকদার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক প্রকৌশলী সঞ্জয় কুমার দাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মোহাম্মদ মিসবাহ উদ্দিন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মোঃ জামাল উদ্দিন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইমরান ফারুকী, সহ-সাংষ্কৃতিক সম্পাদক শিল্পী হারুন অর রশিদ, সদস্য সুমন চৌধুরী, শেখ মোঃ আবদুল্লাহ শেকাব, মোঃ সেলিম উদ্দিন ডিবলু, সুমন চৌধুরী, মোঃ হারুনুর রশিদ, অভিজিৎ দে রিপন প্রমুখ। প্রয়াত আবদুল গফুর হালির স্মরণে তার রচিত ও সুরারোপিত মাইজভা-ারী গান ও আঞ্চলিক গান পরিবেশন করেন, শিল্পী হারুন অর রশিদ, রাত্রি ধর, জয়িতা দত্ত, সুমাইয়া হোসেন, অর্পিতা শীল, জয় দত্ত দীপ্ত, সানজানা আফরিন, রক্তিম ধর, নিঝুম বড়–য়া, আইভী দাশ প্রমুখ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close