মালয়েশিয়া কখনো পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হবে না

1ডেস্ক রিপোর্ট :: মালয়েশিয়া একটি পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হবে এমন স্বপ্ন জনগণ কখনো দেখেনি। দীর্ঘ সময় ধরে যে আইন ও প্রবিধান রয়েছে তা থেকে উপলব্ধি করা যায় মালয়েশিয়া পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার আশঙ্কাই বেশি বলে দাবি করেছেন দেশটির ডেমোক্রেটিক অ্যাকশন পার্টির মহাসচিব লিম গুয়ান এং।

লিম গুয়ান এং বলেন, দেশের জনগণ যেমন পুলিশি রাষ্ট্র চায় না, তেমনি মালয়েশিয়ার কোনো রাজনৈতিক দলও দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করার কথা উচ্চারণ করেনি। কিন্তু তারপরও ভুল নীতি ও ভ্রান্ত কৌশলের কারণে পুলিশি রাষ্ট্রের নানা আচরণ এখন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে সরকার শুধু দেশে নয়, বিদেশেও সমালোচনার পাত্রে পরিণত হবে।

এদিকে পুলিশের আইজিপি তান শ্রী খালিদ আবু বকর বলেন, এ ধরনের দাবি ভিত্তিহীন আমাদের দেশে পুলিশি রাষ্ট্র হতে পারে না। কারণ যদি আমরা আইন ভঙ্গ করি অথবা বিদ্রুপ কোন কর্ম-কাণ্ডে জড়িত থাকি তাহলে দেশের সংবিধান অনুযায়ী আইন রয়েছে আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার। আর সেই সংবিধান অনুযায়ী কিন্তু সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়।

বুধবার ইউনিভার্সিটি উতারা মালয়েশিয়া প্রাঙ্গণে এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশিয়ার একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে মহাসচিব লিম গুয়ান এং মালয়েশিয়া পুলিশি রাষ্ট্রের দিকে দাবিত হচ্ছে বলে যে প্রশ্ন তুলেছিলেন এরই ধারাবাহিকতায় সংবাদ সম্মেলনে আইজিপি তার সমালোচনা করেন।

উল্ল্যেখ্য, প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে আনীত দুর্নীতির অভিযোগ ধামাচাপা দিতে দেশটির পুলিশ বাহিনী লাঠিয়াল বাহিনীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এক প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে। খবর এএফপির।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এ সংস্থার দাবি, রাষ্ট্র পরিচালিত কোম্পানি ওয়ান মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বেরহাদ তহবিল থেকে ৭০ কোটি ডলার আত্মসাতে অভিযুক্ত নাজিব সমালোচকদের মুখ বন্ধ করতে পুলিশি দমন আইন প্রয়োগ করছেন।

এ ব্যাপারে সংস্থাটির এশিয়া অঞ্চলের নির্বাহী পরিচালক ব্রাড অ্যাডাম বলেন, দিন দিন মালয়েশিয়া পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে এবং মুক্ত ও স্বাধীন সমালোচনার অধিকার খর্ব হচ্ছে।

মানবাধিকার সংস্থাটি ক্রিয়েটিং অ্যাকালচার অব ফেয়ার শিরোনামে ওই প্রতিবেদনে আরো বলেছে, নাজিব সরকার দেশটির বিরোধী নেতা, সুশীল সমাজের ব্যক্তি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্বকে টার্গেট করে কোনো ধরনের তদন্ত ও অভিযোগ ছাড়াই নিপীড়ন করছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close