৫০ বছর লিভ-টুগেদারের পর বিয়ে!

jakia..weding_114638আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দীর্ঘ ৫০ বছর একই ছাদের নিচে থেকে অবশেষে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন রাজস্থানের এক দম্পতি। পাত্রের বয়স ৮০ এবং কনের বয়স ৭০ বছর। রীতিমতো গায়ে হলুদ দিয়ে, সাত পাক ঘুরে, অতিথি আপ্যায়ন করে সম্পন্ন হল শুভবিবাহ। আশ্চর্য এই লিভ-টুগেদারের ঘটনা ভারতের রাজস্থানের প্রত্যন্ত এক গ্রাম উদয়পুরের মাণ্ডওয়াতে।

প্রত্যন্ত এই গ্রামে কোনো রকম প্রথাগত বিয়ে ছাড়াই গত ৫০ বছর ধরে নিজের সঙ্গীর সঙ্গে থাকেন আদিবাসী সম্প্রদায়ের পাবুরা খের। আদিবাসীদের মধ্যে অবশ্য লিভ-ইন করাটা নতুন কিছু নয়।

পাবুরা ও রূপলি ৫০ বছর আগে যখন লিভ-ইন করার সিদ্ধান্ত নেন, তখন তাদের আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। পরেও কোনো অনুষ্ঠান করে বিয়ে করা তাদের সামর্থে কুলোয়নি। এভাবে একসঙ্গে কেটে গিয়েছে বছরের পর বছর। এরই মধ্যে তাদের কোলে এসেছে সাত সন্তান। ৫ মেয়ে ও ২ ছেলে। ছেলের ঘরে নাতির সংখ্যা আবার ১৩। শুধু তাই নয়, বর্তমানে নাতিদের ঘরেও সন্তান এসেছে। চতুর্থ প্রজন্মের ৪ সদস্যকে নিয়ে এখন তাদের পরিবারের সদস্য সংখ্যা ৩০। এত কিছু হয়েছে, তবে কখনও নিজেদের বিয়ের কথা মাথাতেও আসেনি প্রবীণ এই দম্পতির। তবে, বাবা-মায়ের জীবনের অপূর্ণ স্বাদ পূরণ করলেন ছেলেমেয়ে ও নাতি-নাতনিরা। ধূমধাম করে পাবুরা ও রূপলির বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন তারা। শনিবার হয়েছে গায়ে-হলুদ ও সঙ্গীত। আর রবিবার প্রায় ১৫০ জন পাড়া-প্রতিবেশীকে সাক্ষী রেখে সাত পাকে বাঁধা পড়লেন পাবুরা ও রূপলি। কনের ভাইয়েরা করলেন কন্যাদান।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close