কিশোরগঞ্জে ট্রলারডুবিতে পাঁচ নারী আনসার নিহত

64327ডেস্ক রিপোর্টঃ কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে নির্বাচনী দায়িত্ব পালন শেষে জেলা কার্যালয়ে আসার পথে ট্রলারডুবিতে সংরক্ষিত আসনের এক নারী মেম্বারসহ পাঁচ নারী আনসার সদস্য নিহত হয়েছেন।
রোববার ভোর পাঁচটার দিকে মিঠামইন উপজেলা সদরের লঞ্চঘাটে এই ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে।
নিহত আনসার সদস্যরা হলেন- সাবিনা আক্তার (৪৫), বিউটি রাণী সূত্রধর (৩৮), হাসনা আক্তার (৩৮), নোমেনা আক্তার (৪৫) ও আম্বিয়া খাতুন (৩৮)। নিহতরা সবাই নিকলী উপজেলার বাসিন্দা। তাদের মধ্যে হাসনা আক্তার নিকলী উপজেলার দামপাড়া ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী মেম্বার। তিনি ওই ইউনিয়নের কামালাপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী। নিহত অন্যদের মধ্যে সাবিনা আক্তার একই ইউনিয়নের উত্তর দামপাড়া সাহেবহাটির হাবিব মিয়ার স্ত্রী, বিউটি রাণী সূত্রধর দামপাড়া টেকপাড়ার মৃত নারায়ণ সূত্রধরের স্ত্রী, আম্বিয়া খাতুন জারইতলা গ্রামের ফজলু মিয়ার স্ত্রী এবং নোমেনা আক্তার জারইতলা ইউনিয়নের সাজনপুর গ্রামের আবদুল মন্নাফের স্ত্রী। এদিকে ট্রলারডুবির খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. আজিমুদ্দিন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন খান, আনসার ও ভিডিপির সার্কেল এডজুটেন্ট এসএম শরীফুল আলম ঘটনাস্থলে ছুটে যান।
বেঁচে যাওয়া আনসার সদস্যরা জানান, শনিবার অনুষ্ঠিত মিঠামইন উপজেলার ইউপি নির্বাচন শেষে দায়িত্বপালনকারী আনসার সদস্যরা মিঠামইন উপজেলা সদরে রাত্রিযাপন করেন। রাত্রিযাপন শেষে রোববার ভোরে তারা জেলা সদরের কার্যালয়ে আসার জন্য মিঠামইন বাজার লঞ্চঘাটে যান। ঘোড়াউত্রা নদীর পাড়ের লঞ্চঘাট থেকে তারা চামড়াগামী একটি ট্রলারে ওঠে বসেন। ৬০/৭০ জন আনসার সদস্য নিয়ে ট্রলারটি রওনা হওয়ার মুহূর্তে যাত্রীদের হুড়োহুড়ির কারণে উল্টে গিয়ে ঘাটেই ডুবে যায়। এতে ট্রলারে থাকা অন্তত ২০ জন্য নারী আনসার সদস্য ট্রলারের ভেতর আটকা পড়েন। এদিকে ট্রলারডুবির পর পরই পুলিশ ও এলাকাবাসী উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন। উদ্ধার তৎপরতার এক পর্যায়ে সকাল সাতটার দিকে ঘোড়াউত্রা নদী ও ডুবে যাওয়া ট্রলার থেকে সাবিনা আক্তার, বিউটি রাণী সূত্রধর, হাসনা আক্তার ও নোমেনা আক্তার এই চার জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে সকাল আটটার দিকে আম্বিয়া খাতুনের লাশ উদ্ধার করা হয়। ট্রলারটির আর কোন যাত্রী নিখোঁজ রয়েছেন কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close