‘হতাশা থেকে চরিত্র হননের খেলায় খালেদা’

hasanডেস্ক রিপোর্ট:: আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, হতাশা থেকে ও নিজের অপকর্ম ঢাকার জন্য অন্যের চরিত্র হননের নোংরা খেলায় মেতে উঠেছেন। হতাশা থেকেই খালেদা জিয়া সরকার ও সরকারি দল এবং সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের পরিবার সম্পর্কেও কুৎসা রটনা করছেন।

আজ মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর ধানমণ্ডি আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির পক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন অভিযোগ করেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আপনার বিষয়ে নোংরা কিন্তু সত্য অনেক বিষয় আমাদের জানা আছে। যদি এই নোংরা খেলা খেলেন, তবে সেই বিষয়গুলো আমরা জাতির সামনে তুলে ধরতে বাধ্য হবো।

তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশ না করার মাধ্যমে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। তার নেতা-কর্মীরা প্রচণ্ড হতাশায়। হরতাল ডেকে দেশের মানুষকে অবরুদ্ধ করে, শত শত মানুষকে পেট্রলবোমা মেরে হত্যা করেও ক্ষমতায় যাওয়া উগ্র বাসনাকে চরিতার্থ করতে না পেরে হতাশাগ্রস্ত।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশে তিনি বলেন, নিজের পুত্র ও পরিবারের সদস্যদের অপকর্ম ঢাকার জন্য আপনি নোংরা খেলায় মেতে উঠবেন না। আপনার বিষয়ে নোংরা কিন্তু সত্য অনেক বিষয় আমাদের জানা আছে। যদি নোংরা খেলেন, তবে সেই বিষয়গুলো আমরা জাতির সামনে তুলে ধরতে বাধ্য হবো।

খালেদা জিয়াকে আত্মস্বীকৃত দূর্নীতিবাজ আখ্যায়িত করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, তিনি কালো টাকা সাদা করেছেন। আয়ের উৎস দেখাতে পারেননি। এজন্য তার ইনকাম ট্যাক্সের ফাইল ক্লিয়ার হয়নি।

‘সরকারের আমলে সাত বছরের হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে গেছে’ খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তিনি (খালেদা) হয়তো ভুলে গেছেন, তিনি যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তখন হাওয়া ভবন প্রতিষ্ঠা দেশে সমান্তরাল সরকার পরিচালনা করা হয়েছে। সেই হাওয়া ভবনের মাধ্যমে তার পুত্রের নেতৃত্বে টাকা লুটপাট করা হয়েছে। ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত দেশে কয়েক লাখ কোটি টাকা দূর্নীতি হয়েছে।

বিএনপি আমলে বিদ্যুতের খাম্বা লাগিয়ে ২১ হাজার কোটি টাকা লোপাট করা হয়েছিল এমন দাবি করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, শুধু খালেদা জিয়ার পুত্র দুর্নীতিবাজ তা নয় পরিবারের অন্য সদস্যরা বিশেষ করে তার ভাইয়েরা ৯৮০ কোটি বিশ লাখ টাকা লোপাট করেছে। যাকে ব্যাংক ডাকাতে বলে আখ্যায়িত করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবাহান গোলাপ, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক আব্দুর সাত্তার, কার্যনির্বাহী সদস্য সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ।

Sharing is caring!

Loading...
Open

Close