দুর্বৃত্তের হামলায় আ.লীগ নেতা নিহত

সিলেটের বিশ্বনাথে দুর্বৃত্তের হামলায় আহমদ আলী (৫৫) নামের এক আওয়ামী লীগ নেতা নিহত হয়েছেন। তিনি সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দেওকলস ইউনিয়নের দক্ষিণ সৎপুর গ্রামের বাসিন্দা ও বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেলে রাত ৯ টা পর্যন্ত বাড়িতে না ফেরায় তাকে খুঁজতে থাকেন পরিবারের সদস্যরা। রাত ১২টা পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজির একপর্যায়ে জানতে পারেন গ্রামের পাশে তাদের ফিশারির পুকুরে তার লাশ ভাসছে।

পরে পুলিশে খবর দিলে শুক্রবার (৭ জুন) ভোররাত ৩টার দিকে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুদ্দোহা, ওসি তদন্ত দুলাল আকন্দ, এসআই দেবাশীষ শর্মা ও এসআই দিদার আলম ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করেন।

লাশ উদ্ধারের পর সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে ময়না তদন্তের জন্য ভোরে নিহতের মরদেহ সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

নিহতের পরিবারের দাবি দুর্বৃত্তরা হামলা করে আহমদ আলীকে পানিতে ফেলে হত্যা করে পালিয়ে গেছে। ঘটনার পর থেকে ওই ফিশারির দায়িত্বে থাকা একই গ্রামের (সৎপুর খাশজান) মৃত ময়না মিয়ার ছেলে জমির হোসেন পলাতক রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনের মতো ঈদের পরদিন বৃহস্পতিবার বাদ আছর বাড়ি থেকে স্থানীয় রাজার বাজারে যান আহমদ আলী। রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে বাড়ি ফেরার কথা থাকলেও রাত ৯টা পর্যন্ত না ফেরায় তার ছেলে ইব্রাহীম আলী, ইব্রাহীমের চাচা সিকন্দর আলী তাকে খুঁজতে থাকেন। খোঁজখুজির একপর্যায়ে ফিশারির পুকুরে তার লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা বাড়িতে খবর দেন। পরে বাড়ির লোকজন পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফিশারির পুকুর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পূর্বশত্রুতার কারণে এ হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে জানিয়ে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামুসদ্দোহা পিপিএম ও তদন্ত ওসি দুলাল আকন্দ বলেন, তাদের ধারনা প্রথমে মাথায় আঘাত করার পর হত্যা নিশ্চিত করতে দুর্বৃত্তরা তাকে পুকুরে ফেলে পালিয়ে গেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open