কুলাউড়ায় যানজট নিরসনে মাঠে ছাত্রীরা

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌরশহরে যানজট নিরসনে মাঠে নেমেছে ছাত্রীরা।

শুক্রবার সকাল থেকে শহরের প্রধান রাস্তায় বিভিন্ন পয়েন্টে তারা যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। গত কয়েক বছর ধরেই কুলাউড়া শহরে স্কাউট গ্রুপের ছেলেরা যানজট নিরসনে যুক্ত থাকলেও এই বছরই প্রথম মেয়েরা মাঠে নেমেছে।

গার্লস ইন স্কাউট সদস্যদের স্কাউট সংগঠনের সদস্যরা বলছেন, এটা তাদের ঈদ সেবা।

সরেজমিনে দেখা যায়, কুলাউড়া শহরের ভেতর দিয়ে যাওয়া মৌলভীবাজার-বড়লেখা আঞ্চলিক মহাসড়কের দুই পাশে বিভিন্ন বিপণিতে ঈদের কেনাকাটা চলছে। শহরের দক্ষিণ বাজার, রেলস্টেশন চৌমোহনী, আউটার ও উত্তর বাজার এলাকায় স্কাউটের সদস্যরা যানজট নিরসনে কাজ করছেন। ট্রাফিক আইন মেনে চলতে তারা গাড়ি চালকদের পরামর্শ দিচ্ছেন। এ ছাড়া ফুটপাতে গাড়ি দাঁড় করিয়ে না রাখতেও বলছেন। তাদের পাশাপাশি ট্রাফিক পুলিশকেও এ কাজে তৎপর দেখা যায়।

গার্লস ইন স্কাউট সদস্য জান্নাতুল ফেরদৌস শাকি বলেন, এই কার্যক্রমের সাথে যুক্ত হয়ে কাজ করতে পেরে আমার খুবই ভালো লাগে। এটার কারণে আমাদের সমাজের মধ্যে মেয়েরা যে প্রতিটি কাজেই ভালো করতে পারে এটা একটা প্রমাণ।

কুলাউড়া মুক্ত স্কাউট গ্রুপের সম্পাদক শামসুদ্দিন বাবু বলেন, ঈদে কেনাকাটা করার জন্য উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন শহরের বিপণিগুলোতে ভিড় জমান। এ কারণে এ সময়টাতে যানজটের সৃষ্টি হয়। তাই, আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে শহরের ব্যস্ত এলাকায় যানজট নিয়ন্ত্রণে ‘ঈদ সেবা’ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত সংগঠনের ৩০ জন সদস্য পর্যায়ক্রমে এ কার্যক্রম চালাবেন। এটা চলবে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত। এ কাজে জনপ্রতিনিধিসহ উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিক, এবং ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা তাঁদের উৎসাহ যুগিয়েছেন। ২০১৫ সাল থেকে ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে তাঁরা এ কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন।

মেয়েদের কার্যক্রমে যানজট মুক্ত থাকায় প্রশংসিত হচ্ছেন তারা।

শহরের চৌমোহনা এলাকায় অবস্থিত ব্যবসায়ী বাপ্পী চৌধুরী বলেন, যানজটের কারণে ক্রেতাদের ভোগান্তি হয় বেশি। স্কাউট সদস্যরা মাঠে নামায় যানজট অনেকটা কমে এসেছে।

কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজল বলেন, তাদের এই কাজ নিঃসন্দেহে খুবই প্রশংসনীয়। বিনা পারিশ্রমিকে তারা মানুষকে যে ঈ্দ সেবা দিয়ে যাচ্ছে, মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে ঈদের কেনাকাটা করতে পারে। এই গ্র“পের সদস্যরা শিক্ষার্থী থাকা অবস্থায় যে মহৎ কাজ করে যাচ্ছে, তারা যেন অদূর ভবিষ্যতে এ ধরণের কাজ করে সমাজের কল্যাণ বয়ে আনতে পারে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, শহরের যানজট নিয়ন্ত্রণে পুলিশের পাশাপাশি স্কাউট সদস্যরা কাজ শুরু করেছেন। আমরা আশা করি যানজট কমিয়ে আনতে পারবো।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের পরিদর্শক (ট্রাফিক) মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন কাজল জানান, বিশেষ সময়ে সড়কে যে চাপ পড়ে তা জনবল সংকটের কারনে পুলিশের পক্ষে একা সামাল দেওয়া কষ্টকর হয়। স্কাউট একটি সেবামুলক প্রতিষ্ঠান। তারা বিগত কয়েক বছর ধরে যানজট মুক্ত করতে বিশেষ সময়ে কাজ করে এই বছর তাদের সাথে মেয়েরাও যুক্ত হয়েছে। মেয়েদের আন্তরিকতা এবং দ্বায়িত্বজ্ঞান প্রশংসার দাবীদার।

Sharing is caring!

Loading...
Open