যা লিখাছিল সিলেট গ্যাসফিল্ডের এমডির ‘সুইসাইডাল নোটে’

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) লুৎফুর রহমানের মৃত্যুর আগে লিখা ছোট নোট বুকে দুই পৃষ্ঠার একটি ‘সুইসাইডাল নোট’ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান মোহাম্মদ মঈনুল জাকির জানান, ইংরেজিতে লেখা ওই নোট বুকে পরিবারের সদস্য, বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনের বিষয়ে বেশী আলোকপাত করেছেন ওই কর্মকর্তা।

তিনি জানান, সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী লুৎফুর রহমানের মৃত্যুর ঘটনায় জৈন্তাপুর থানায় নিহতের ছেলে গালিব ইয়াসার রহমান দাখিলকৃত অভিযোগে অপমৃত্যুর মামলা করা হয়। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে গ্যাস ফিল্ড এলাকায় তদন্ত চলছে।

ওসি জানান, বুধবার সকালে নিজ বাসা থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের পর ওই কক্ষ থেকেই ইংরেজিতে লেখা নোটটি উদ্ধার করা হয়। পুলিশ এটি জব্দ করেছে।

এটাকে লুৎফুর রহমানের ‘সুইসাইডাল নোট’ হিসেবে মনে করছে পুলিশ। এই নোটে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কিছু লেখা নেই। মা, স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে লিখেছেন লুৎফুর রহমান। এছাড়া সম্পত্তির বিবরণ ও ভাগবাটোয়ারা নিয়ে কিছু কথা লেখা রয়েছে। এছাড়া ওই নোটে স্ত্রীর প্রতি নিজের ভালোবাসার কথাও উল্লেখ করেছেন সিলেট গ্যাস ফিল্ডের এই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।
সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত সুপার (গণমাধ্যম) মাহবুব আলম বলেন, এই নোটে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কিছু লেখা নেই। মা, স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে লিখেছেন লুৎফুর রহমান। এছাড়া সম্পত্তির বিবরণ ও ভাগবাটোয়ারা নিয়ে কিছু কথা লেখা রয়েছে।

মাহবুব আলম বলেন, এই নোট পাওয়ার পরই আমরা প্রাথমিকভাবে মনে করছি লুৎফুর রহমান আত্মহত্যা করেছেন। তারপরও ময়নাতদন্ত ও অধিকতর তদন্ত শেষে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

সুইসাইডাল নোটে লেখা রয়েছে -‘মা আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি। আমার জন্য তুমি অনেক কষ্ট সয়েছো। কিন্তু তোমার যে পরিমাণ সেবা শুশ্রুষা করার দরকার ছিলো আমি তা করতে পারিনি। তারপরও আমি বিশ্বাস করি তুমি আমাকে ভালোবাসো। তুমি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা। আমাকে ক্ষমা করে দিও।’

নিজর ৪ একরের মতো জমি থাকার কথা উল্লেখ করে তা মা, স্ত্রী ও সন্তানদের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করে দেওয়ার কথা লিখেছেন লুৎফুর রহমান। এ ব্যাপারে দুই বন্ধুর নাম উল্লেখ করে তাদেরকে সহযোগিতা করতে বলেছেন তিনি।

মা ও সন্তানরা যাতে সম্পত্তি ভাগ থেকে বঞ্চিত না হয় এ ব্যাপারে নজর রাখতেও অনুরোধ করেছেন। এছাড়া তাঁর সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখতে নিজের ভাই ও বোনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, বুধবার সকাল ১০টার দিকে জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুরে অবস্থিত সিলেট গ্যাস ফিল্ডের বাংলোয় নিজ কক্ষে প্রকৌশলী লুৎফুর রহমানের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে বিকেল ৩টার দিকে সিআইডির ক্রাইমসিন ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ নামিয়ে সুরতহাল করে। বিকালে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্তের পর সন্ধ্যায় মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় নগরীর মানিকপীর গোরস্থানে। সেখানে লাশের গোসল শেষে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজা শেষে মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন তার স্বজনরা। আজ (বৃহস্পতিবার) পেট্রোবাংলা কার্যালয়ে দ্বিতীয় জানাজা শেষে ময়মনসিংহের গ্রামের বাড়িতে তাকে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছেন নিহতের স্বজনরা।

সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী লুৎফুর রহমান (৫৫)। ময়মনসিংহ জেলার বাসিন্দা। তিনি গ্যাস ফিল্ড বাংলোতে একা থাকতেন। ২০১৮ সালের ৮ এপ্রিল সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। তার এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে স্ত্রী ঢাকায় থাকেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open